প্রবল চাপে পড়ে আদবানি-যোশীকে শিলান্যাসে আমন্ত্রণ, তবে ভার্চুয়াল

ঘরে বাইরে প্রবল চাপে পড়ে শেষ পর্যন্ত বিজেপি সিদ্ধান্ত বদলে বাধ্য হলো। তবে যে সিদ্ধান্ত হলো, তাতে সাপও মরল, লাঠিও ভাঙল না। অযোধ্যায় রাম মন্দিরের শিলান্যাস অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন লালকৃষ্ণ আদবানি ও মুরলী মনোহর যোশী। তবে অযোধ্যায় নয়, দিল্লি থেকে থাকবেন ভার্চুয়াল বা ভিডিও কনফারেন্সে। রাম মন্দির আন্দোলনের এই দুই স্থপতিকে শুধু ভিডিও কনফারেন্সে রাখলে উদ্দেশ্য পরিষ্কার হয়ে যেত, সেন্সরের অভিযোগ প্রমাণিত হতো। তাই ঠিক হয়েছে আদবানি-যোশীর মতো মোট দশজন সিনিয়র নেতা মন্দির শিলান্যাস অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যোগ দেবেন। কারণ হিসাবে তাঁদের বয়সের কথা বলা হয়েছে। যদিও শিলান্যাসে যে দুজন মঞ্চ আলো করে থাকবেন, তাঁদের মধ্যে একজন মোহন ভাগবত, যাঁর বয়স ৭০, এবং নরেন্দ্র মোদির বয়স ৬৯। ফলে দুই নেতাকে আমন্ত্রণেও যে বিতর্ক থামবে না, তা বলেই দেওয়া যায়।