ফের বঙ্গে জোটের হাওয়া

ফের নির্বাচনের আগে রাজ্যে বাম-কংগ্রেস হাওয়া। পুজোর আগে শরতের আকাশে পেঁজা তুলোর মেঘের মধ্যে দিয়ে এই জোট বার্তা ছড়িয়ে দিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র। জানালেন পুজোর পরেই এই বিষয়ে কর্মসূচি ঠিক হবে। লোকসভা ভোটের ফলে দেখেই না কি কংগ্রেসের এই বোধোদয়। অন্তত এমনটাই দাবি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির। সেই কারণই আগামী বিধানসভা ভোটে বামেদের সঙ্গে জোটের সিদ্ধান্ত।

কিন্তু নির্বাচনের আগেই এই জোট জোট খেলা-বাংলার মানুষ আর বিশ্বাস করবেন তো? গত লোকসভা নির্বাচনের আগে বামেরা শুধু আসন সমঝোতার কথা বললেও, সোমেন মিত্র সহ প্রদেশ নেতৃত্ব 2021 পর্যন্ত বামেদের সঙ্গে জোটের পক্ষে মত দেন। কারণ, শুধু আসন সমঝোতা না করে, রাজপথে লাল ঝান্ডার সঙ্গেই তেরঙ্গা উড়ুক চেয়েছিলেন কংগ্রেসের ছোড়দা। কারণ, 2016-র বিধানসভা নির্বাচনে আসন সমঝোতার সুফল ভোগ করতে পারেনি কংগ্রেস। কিন্তু সে আশায় জল ঢেলে 2019-এর লোকাসভা ভোটে আসন সমঝোতার কথাই বলেছিল বামেরা। কিন্তু তারা জেতা আসত ছাড়তে না চাওয়ায় ভেস্তে যায় সমঝোতাও। এরপরেই শুরু হয় আক্রমণ, পাল্টা আক্রমণের খেলা। প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বের অভিযোগ ছিল, তাঁদের যোগ্য সম্মান দেয়নি সিপিএম। বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু সমঝোতা না হওয়ার পিছনে টাকার খেলা রয়েছে বলে মন্তব্য করেন। চুপ করে থাকেননি প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিও। তিনি অভিযোগ করেন বামফ্রন্টের কারণেই জোট হয়নি বাংলায়।

বৃহস্পতিবার, কংগ্রেসের সমাবেশ থেকে সোমেন মিত্র জানান, দু্র্গাপুজোর পরেই বাম-কংগ্রেস জোট নিয়ে রূপরেখা তৈরি করবেন তাঁরা। এখন এবারের জোট সিংহবাহিনীর কৃপা পায় কি না সে দিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।

আরও পড়ুন-81 বছরের বৃদ্ধ সেজে মার্কিন মুলুকে যেতে গিয়ে ধরা পড়লেন 32 বছরের যুবক