আত্মনির্ভর দেশ গড়ার আহ্বান, IIT-র সমাবর্তনে আর্জি মোদির

করোনা আবহেই মঙ্গলবার খড়গপুর আইআইটি-র সমাবর্তনে ভারচুয়ালি যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)। আইআইটির পড়ুয়াদের অনুপ্রেরণা দেওয়ার পাশাপাশি দেশের উন্নয়নে আত্মনির্ভরতার উপযোগিতার কথাও তুলে ধরেন তিনি। আইআইটিয়ানদের মানুষের জীবন বাঁচাতে ও দেশকে আত্মনির্ভর করতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে হবে বলে এদিন তিনি আর্জি জানান।

মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর আড়াইটে পর্যন্ত খড়গপুরের IIT-র নেতাজি অডিটোরিয়ামে সমাবর্তন অনুষ্ঠান চলে। সেখানে সদ্য পাশ করা ৭৫ জন পড়ুয়া সশরীরে উপস্থিত ছিলেন। সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ২১ জনকে প্রাক্তনী সম্মান, ৪ জনকে ডিএসসি সম্মান ও ২ জনকে ফেলো সম্মান দেওয়া হয়। এছাড়াও এদিন প্রায় ২,৮০০ পড়ুয়া ভার্চুয়াল মাধ্যমেই সমাবর্তনে উপস্থিত ছিলেন।

সমাবর্তন অনুষ্ঠানের শুরুতেই সকল পড়ুয়াকে অভিনন্দন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তৃতা শুরু করেন। সেখানে সৌরশক্তির ওপর জোর দিয়ে তিনি বলেন সৌরবিদ্যুৎের গুরুত্ব ও আন্তর্জাতিক সৌরজোটের গুরুত্ব। সেইসঙ্গে বলেন উত্তরাখণ্ডের প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে শিক্ষা নিয়ে আইআইটিয়ানদের গবেষণা করে বের করতে হবে দুর্যোগ মোকাবিলার একাধিক ব্যবস্থা।  আর সেই প্রসঙ্গে আত্মসচেতন, আত্মবিশ্বাস আর নিঃস্বার্থতা- এই তিনটি মন্ত্র করে এগিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কথায়, “একুশ শতকের ভারত বদলেছে। এখন আইআইটি আর শুধু ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট নয়, বরং IIT এখন ইন্সটিটিউট অফ ইনডিজিনিয়াস টেকনোলজি, অর্থাৎ ভারতীয় প্রযুক্তিকে বিশ্বের দরবারে পৌঁছে দেওয়া  দায়িত্ব তাদের।” এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী রবি ঠাকুরের উদ্ধৃতিও তুলে ধরেন। এদিন খড়গপুর আইআইটিতে ড. শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ইন্সটিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টারের উদ্বোধন করেন তিনি। তিনি আরও বলেন নতুন আবিষ্কারগুলি  দেশ জীবন ও সম্পদকে করার দায়িত্ব তাদেরও গ্রহণ করতে হবে। এখান থেকেও বাণিজ্যিকভাবে লাভবান হওয়ার রাস্তা দেখতে হবে দেশকে। এদিন স্নাতকোস্তরের ছাত্রছাত্রীদেরও অভিনন্দন জানান তিনি।

সমাবর্তন অনুষ্ঠান শেষে খড়্গপুরের বলরামপুরে একটি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল এবং মেডিক্যাল কলেজের উদ্বোধন করেন মোদি। সেখানে ৭৫০টি শয্যা চালু হওয়ার কথা। জানা গিয়েছে, আপাতত ওখানে ৪০০ শয্যা চালু করা হবে। এখনও পর্যন্ত এই প্রকল্পে ২৫০ কোটি টাকা খরচ করা হয়েছে। ইউপিএ আমলে প্রস্তাবিত এই হাসপাতালটির নাম দেওয়া হয়েছিল বি সি রায় ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স অ্যান্ড রিসার্চ। সম্প্রতি আইআইটির বোর্ড মিটিংয়ে ওই হাসপাতালের নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যার নাম দেওয়া হচ্ছে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স ও রিসার্চ।

Advt