ছাপ্পা-সন্ত্রাসের মেলবন্ধনে পুরভোটের নামে ত্রিপুরার বুকে রচিত নগ্ন গণতন্ত্রের এক বিচিত্র অধ্যায়

ভোটপর্ব শুরু হতেই উত্তপ্ত ত্রিপুরা। মধ্যরাত থেকে শাসকের চোখ রাঙানি, লাগাতার সন্ত্রাস, প্রার্থীকে মার, ছাপ্পা ভোট। নীরব প্রশাসন

ত্রিপুরার বুকে রচিত হলো গণতন্ত্রের এক অন্ধকার অধ্যায়। যা এই ভূ-ভারতে আগে কোথাও কেউ দেখেনি। যেখানে সুপ্রিম কোর্টকে বলে বলে বুড়ো আঙুল দেখাল রাজ্য প্রশাসন ও শাসক বিজেপি। গেরুয়া সন্ত্রাসের বাতাবরণে ভূলুণ্ঠিত গণতন্ত্র। ছাপ্পা-সন্ত্রাসের মেলবন্ধনে ভোটের নামে প্রহসন ও গণতন্ত্রের নগ্ন ছবি ফুটে উঠল প্রাচীন নগর আগরতলা সহ ত্রিপুরার মাটিতে।

ভোটপর্ব শুরু হতেই উত্তপ্ত ত্রিপুরা। মধ্যরাত থেকে শাসকের চোখ রাঙানি, লাগাতার সন্ত্রাস, প্রার্থীকে মার, ছাপ্পা ভোট। নীরব প্রশাসন। যেখানে শুধু বিরোধী প্রার্থী বা সাধারণ ভোটারা নয়, বৃদ্ধ দম্পতিও শিকার হলেন শাসকের রোষের। আক্রান্ত আইনজীবীও। আর সব দেখেও নীরব পুলিশ।

ত্রিপুরা পুর নির্বাচনের এই ছবি ঘুরে বেড়িয়েছে সংবাদ মাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়াতে। গণতন্ত্রের নামে এহেন প্রহসন দেখে শিউরে উঠেছে গোটা দেশ।ত্রিপুরাতে গণতন্ত্রের নতুন অভিধান উপহার দিলেন বিপ্লব দেব এন্ড কোং।

নগ্ন গণতন্ত্রের এই বিচিত্র অধ্যায়ে কোথাও মাথা থেকে রক্ত ঝরছে বিরোধী প্রার্থীর এজেন্টের তো কোথাও তৃণমূল প্রার্থীর ছেলে, মেয়েকে মারছে, কাউকে ভোট দিতে দিচ্ছে না, প্রার্থী ও এজেন্টদের বের করে দেওয়া হচ্ছে, থানার সামনে প্রতিবাদ করলে পুলিশ তুলে নিয়ে যাচ্ছে। দিনের আলোয় হাসতে হাসতে একজনের ভোট আরেকজন দিয়ে দিচ্ছে।
প্রতিবাদ করলে মন্ত্রী সাজাচ্ছেন নিরীহ মহিলা ভোটারদের।
যা দিনভর সংবাদ মাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে দেখলো গোটা দেশ।

সত্য সেলুকাস, কী বিচিত্র…! জন্মদিনে ত্রিপুরার বুকে ছাপ্পা-সন্ত্রাসের মেলবন্ধনে পুরভোটের নামে নগ্ন গণতন্ত্রের বিচিত্র অধ্যায়ের রূপকার হিসেবে কলঙ্কিত ইতিহাসের পাতায় নিজের নাম তুললেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব।

আরও পড়ুন:Glenary’s -Darjeeling :  ‘গ্লেনারিজ’ রেস্তোরাঁ কর্তা অজয় এডওয়ার্ডের নতুন রাজনৈতিক দল ‘হামরো পার্টি’

 

Previous articleGlenary’s -Darjeeling :  ‘গ্লেনারিজ’ রেস্তোরাঁ কর্তা অজয় এডওয়ার্ডের নতুন রাজনৈতিক দল ‘হামরো পার্টি’