Bihar: ছেলেকে ছাড়াতে পুলিশ অফিসারকে ম্যাসাজ করলেন মা

”এই মহিলা গরিব, অভাবী… কত টাকা পাঠাব আমি? আমরা একটা খামে করে সেই টাকা পাঠিয়ে দেব। দু’জন মহিলা তাঁদের আধার কার্ড নিয়ে আপনার কাছে যাবেন। আমি সোমবার টাকা পাঠাব মোবাইলে দেওয়া ঠিকানাটায়। পাপ্পু বাবু, আমি আপনাকে অনুরোধ করছি।”

সন্তানকে রক্ষা করতেই মা সব সময় এগিয়ে আসেন। এক্ষেত্রেও তাই হল। তবে ছেলেকে মুক্ত করাতে গিয়ে এমন ঘটনা ঘটলো মায়ের সাথে, যার জেরে সমালোচনার মুখে বিহারের পুলিশ(Bihar police)। জেলে বন্দী ছেলে, থানায় গিয়ে পুলিশ অফিসারের কাছে অনুনয়-বিনয় করলেন মা। শেষমেষ মিলল মুক্তির আশ্বাস কিন্তু তার জন্য শর্ত হিসেবে তাঁকে ম্যাসাজ করতে হল ওই আধিকারিককে! বিহারের (Bihar) এমনই এক ঘটনার ভিডিও ভাইরাল (Viral video) হতেই বিপাকে অভিযুক্ত অফিসার।

ঘটনাটি বিহারের সহর্সা জেলার। অভিযুক্ত অফিসারের নাম শশীভূষণ সিনহা। তিনি নৌহাট্টা থানার সিনিয়র আধিকারিক। সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছে তাঁর এক ভিডিও। সেই ৩ সেকেন্ডের ভিডিওয় দেখা গেছে ঊর্ধ্বাঙ্গ অনাবৃত করে পুলিশ আধিকারিক বসে রয়েছেন থানায়। তাঁকে ম্যাসাজ করে দিচ্ছেন এক মহিলা। সেই সময় এক আইনজীবীর সঙ্গে ফোনে কথা বলতে দেখা যাচ্ছে ওই অফিসারকে। ভাইরাল হওয়া ভিডিওটির সত্যতা যাচাই করে নি এখন বিশ্ববাংলা সংবাদ। তবে ঘটনা জানাজানি হতেই ওই পুলিশ আধিকারিককে সাসপেন্ড করা হয়েছে বলে বিহার পুলিশ সূত্রে খবর।

প্রবল গরমের পর স্বস্তি, দক্ষিণবঙ্গের জেলায় জেলায় ঝড়বৃষ্টি

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে ওই অফিসারকে বলতে শোনা যায়, ”এই মহিলা গরিব, অভাবী… কত টাকা পাঠাব আমি? আমরা একটা খামে করে সেই টাকা পাঠিয়ে দেব। দু’জন মহিলা তাঁদের আধার কার্ড নিয়ে আপনার কাছে যাবেন। আমি সোমবার টাকা পাঠাব মোবাইলে দেওয়া ঠিকানাটায়। পাপ্পু বাবু, আমি আপনাকে অনুরোধ করছি।” ভিডিওতে আরেক মহিলাকে দেখা যায় পাশে বসে থাকতে। ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পরই বিতর্ক দানা বাঁধে। এরপরই তড়িঘড়ি অভিযুক্ত অফিসারকে সাসপেন্ড করে সংশ্লিষ্ট থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার।

Previous articleBengal: সন্তোষ ট্রফির ফাইনালে বাংলা