Bihar:আজব কাণ্ড! ফুল মার্কস ১০০, পরীক্ষার্থী পেলেন ৫৫৫

মুঙ্গের বিশ্ববিদ্যালয় (Munger University)স্থাপিত হয় ২০১৮ সালে। অত্যন্ত সুপ্রতিষ্ঠিত এই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য শ্যামা রায় এই নম্বর বিভ্রাটের বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের তরফে ভুলও স্বীকার করা হয়েছে।

কতই রঙ্গ ঘটে দুনিয়ায়,একনজরে দেখলে অবাক হয়ে যেতে হয়। প্রশ্ন, এও কি সম্ভব? পরীক্ষা হল ১০০ নম্বরে আর পরীক্ষার্থী পেলেন ৫৫৫! একি মামদোবাজি,চক্ষু চড়কগাছ। বিহারের (Bihar)এই কীর্তিমান ছাত্রের কথা ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social Media)।

বিহারের এক স্নাতকের মার্কশিট দেখে চোখ কপালে উঠেছে মুঙ্গের বিশ্ববিদ্যালয় (Munger University)কর্তৃপক্ষের। এই পরিমান নম্বর পাওয়ার পর হিসেব করে দেখা গেছে ওই তরুণ পরীক্ষায় ১০৮.৫ শতাংশ নম্বর পেয়ে পাশ করেছেন। কী করে সম্ভব হল এমনটা? উঠছে প্রশ্ন। জানা যাচ্ছে মুঙ্গের বিশ্ববিদ্যালয়ের (Munger University)তৃতীয় বর্ষের ছাত্রের সাফল্যের নজির দেখে হতবাক সবাই। গত শনিবার ২০১৮-২১ শিক্ষাবর্ষের পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই পড়ুয়া তাঁর অনার্স সাবজেক্টে ৮০০-তে ৮৬৮ পেয়েছেন!এহেন মার্কশিট(Marksheet)ঘিরে স্বাভাবিক ভাবেই বিতর্ক শুরু হয়েছে।

মুঙ্গের বিশ্ববিদ্যালয় (Munger University)স্থাপিত হয় ২০১৮ সালে। অত্যন্ত সুপ্রতিষ্ঠিত এই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য শ্যামা রায় এই নম্বর বিভ্রাটের বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের তরফে ভুলও স্বীকার করা হয়েছে। শোকজ করা হয়েছে পরীক্ষার নিয়ামক রামাশিস পুর্বেকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফ থেকে বলা হয়েছে প্রযুক্তিগত সমস্যার কারণেই এমনটা ঘটেছে। তাঁর ভুল স্বীকারের পরেও বিতর্ক অব্যাহত। প্রশ্ন উঠছে, স্নাতক স্তরের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের সময় উপাচার্য, সহ-উপাচার্য এবং পরীক্ষার নিয়ামক- সকলের সম্মতির পরেই তা প্রকাশ্যে আনা হয়। তাহলে কী করে এমন ভুল থাকা অবস্থায় তা প্রত্যেকের নজর এড়িয়ে গেল? যদিও এই নিয়ে মুখ খুলতে নারাজ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।




Previous articleভারতীয় মহিলাদের স্বামীর প্রতি অধিকারবোধ প্রবল, জানাল এলাহাবাদ হাইকোর্ট