নেতাদের তল্পিবাহক হয়ে টিকিট পাওয়া যাবে না: একুশের মঞ্চ থেকে কড়া বার্তা অভিষেকের

অভিষেক সরাসরি বলেন, "হয় ঠিকাদারি করুন, না হলে তৃণমূল করুন। তৃণমূল করে খাওয়ার জায়গা নয়।" কোনও অসামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকলে তৃণমূলে থাকা যাবে না- কড়া বার্তা তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক।

অঝোরে বৃষ্টি। আর তার মধ্যে ছাতা ছাড়া তুমুল ভিজেও গর্জে উঠলেন তৃণমূলের (TMC) সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee)। তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের কড়া বার্তা দিলেন তিনি। স্পষ্ট জানালেন, নেতাদের তল্পিবাহক হয়ে ভোটে তৃণমূলের টিকিট পাওয়া যায় না। নেতাদের জলের বোতল বয়ে আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে টিকিট পাওয়া যাবে না, তার জন্য কাজ করতে হবে। অভিষেক সরাসরি বলেন, “হয় ঠিকাদারি করুন, না হলে তৃণমূল করুন। তৃণমূল করে খাওয়ার জায়গা নয়।” কোনও অসামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকলে তৃণমূলে থাকা যাবে না- কড়া বার্তা তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক।

সমাবেশের মঞ্চ থেকে সেদিনের শহিদের শ্রদ্ধা জানিয়ে অভিষেক বলেন, যাঁর একুশে জুলাইয়ে ইতিহাস জানে না, তাঁদের তৃণমূল করার অধিকার নেই। তৃণমূলের কর্মীদের উদ্দেশ্যে অভিষেকের বার্তা, দলে থাকতে হলে নির্ভীক, নির্লোভ হতে হবে।

মঞ্চ থেকে বিজেপি-র বিরুদ্ধে তীব্র আক্রমণ করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। জানান, “বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির ভরাডুবি হওয়ার পরেও কেন্দ্রের প্রকল্পের টাকা বন্ধ করে দিয়েছে। আর বিজেপির নেতৃত্ব গর্ব করে বলছে, মোদিজিকে বলে টাকা আটকে দিয়েছি। সেটাই বলেছিলাম। এরা মানুষের জন্য কাজ করে না শুধু ক্ষমতার লোভ।” এরপরেই দিল্লির বুকে বিজেপির বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক লড়াইয়ের ডাক দেন তৃণমূলের সর্বাভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। ‘আচ্ছে দিনে’র নাম মোদি সরকার পোট্রোপণ্যের থেকে শুরু করে নিক্য প্রয়োজনীয় সব জিনিসের দাম বাড়িয়ে মানুষের নাভিশ্বাস তুলে দিচ্ছে। সারা দেশে মোদির একমাত্র যোগ্য প্রতিপক্ষ মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় (Mamata Banerjee)। আগামী পঞ্চায়েত থেকে শুরু করে লোকসভা- সব নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের নেতৃত্বে বাংলার ১০ কোটি মানুষই বিজেপিকে ক্ষমতাচ্যুত করতে পারবে- বার্তা অভিষেকের।

 

 

 

Previous articleAnnu Rani: ফের বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে অন্নু রানি