“আমাদের শিক্ষক দাও, আমরা পড়তে চাই”, ত্রিপুরায় শিক্ষাক্ষেত্রে নৈরাজ্যের প্রতিবাদে রাস্তায় তৃণমূল

অভিযানে পা মিলিয়েছেন ত্রিপুরা প্রদেশ তৃণমূল কংগ্রেসের ইনচার্জ রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রদেশ তৃণমূল কংগ্রেস নেতা পূজন বিশ্বাস, ত্রিপুরা প্রদেশ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ইনচার্জ নীলকমল সাহা, ছাত্রনেতা শিবম সাহা-সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ

ত্রিপুরা প্রদেশ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে বুধবার এক বিশাল মিছিলের আয়োজন করা হয় আগরতলায়। যার পোশাকি নাম ছিল “শিক্ষা ভবন ঘেরাও অভিযান”। এদিন শিক্ষা ভবন ঘেরাও করার মূল উদ্দেশ্য হলো ত্রিপুরার ছাত্র-ছাত্রীরা যে বেহাল শিক্ষা ব্যবস্থার মধ্যে দিয়ে আছে তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ।

এদিনের অভিযানে পা মিলিয়েছেন ত্রিপুরা প্রদেশ তৃণমূল কংগ্রেসের ইনচার্জ রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রদেশ তৃণমূল কংগ্রেস নেতা পূজন বিশ্বাস, ত্রিপুরা প্রদেশ তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ইনচার্জ নীলকমল সাহা, ছাত্রনেতা শিবম সাহা-সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

এই অভিযান নিয়ে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “ত্রিপুরা প্রদেশ তৃণমূল ছাত্র পরিষদ আজকে শিক্ষা ভবন ঘেরাও করেছে। কারণ, ত্রিপুরার বুকে শিক্ষাক্ষেত্রে চরম নৈরাজ্য চলছে। দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষক নিয়োগ হয়নি এবং বামফ্রন্ট যে ভুল প্রক্রিয়ায় শিক্ষক নিয়োগ করেছিল, বর্তমানেও সেটাকে বিজেপি সরকার চালিয়ে যাচ্ছে। বহু জায়গায় দেখা যাচ্ছে ছাত্র আছে কিন্তু স্কুলে শিক্ষক নেই, কোথাও দেখা যাচ্ছে স্কুলের পরিকাঠামো একদম বেহাল দশায় রয়েছে, যে ধরনের মিড ডে মিল দিচ্ছে সেটা ছাত্রদের খাওয়ার অযোগ্য। বিভিন্ন জায়গায় দেখবেন এরা চাইছে যে সরকারি স্কুলগুলো বন্ধ হয়ে গিয়ে যাতে বেসরকারি স্কুলে অভিভাবকরা তাঁদের সন্তানদের ভর্তি করেন। জানি না এর পেছনে কী রহস্য আছে! ১০০০ টাকা করে কেনো নেবে? আজকের দাবিগুলো যদি পূরণ না হয়, আগামিদিনে আরও বৃহত্তর আন্দোলনে পথে নামবে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ।”

ঘেরাও চলাকালীন ছাত্র নেতা শিবম সাহা বলেছেন, “আমাদের আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল এই রাজ্যের যে শিক্ষক স্বল্পতা, মিড ডে মিলের পুষ্ঠির বদলে পাথর, যা খেয়ে ছাত্ররা অসুস্থ হচ্ছে, শিক্ষকের পরিবর্তে আয়া দিয়ে ক্লাস চলছে, কলেজ চত্বরে গুন্ডারাজ, এইসবের বিরুদ্ধে আমরা যে ডেপুটেশন দিয়েছিলাম, ওএসডি আমাদের আশ্বাস দিয়েছিলেন যে উনি এগুলো দেখবেন কিন্তু আজকে ৭দিন পেরিয়ে যাওয়ার পরেও ওনাদের তরফ থেকে কোনওরকম পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি তাই ওনাদের অলসতার প্রতিবাদে তৃণমূল ছাত্র পরিষদ আজকে রাজপথে নেমেছে এবং আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে।”

 

Previous articleপুজোর আগেই ৯২৩ শূন্যপদে নিয়োগের নির্দেশ বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের