বিক্ষোভের মুখে পড়ে আইনজীবীর পরিচয়ে জাঙ্গিপাড়ার নাবালিকার পরিবারের সঙ্গে কথা বিজেপি নেত্রীর

দশমীর দিন থেকে নিখোঁজ থাকার পর শনিবার হুগলির জাঙ্গিপাড়ায় পুকুর থেকে উদ্ধার হয়েছে নাবালিকার দেহ । এ নিয়ে গতকাল থেকেই উত্তপ্ত হুগলির জাঙ্গিপাড়া। তবে মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি চাই না গ্রামবাসীরা। প্রশাসনের তদন্তেই খুশি তারা। তাই রবিবার সকালে কংগ্রেসের প্রতিনিধিদল নাবালিকার পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গেলে তাদের তাড়া করে গ্রামছাড়া করে গ্রামবাসীরা। এরপর মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করতে গ্রামে ঢুকতে গিয়ে দফায় দফায় বিজেপিকেও গ্রামবাসীদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়। শেষমেশ আইনজীবীর পরিচয় দিয়ে জাঙ্গিপুর থানায় পৌঁছয় বিজেপি নেত্রী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়াল। পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে নাবালিকার পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন তিনি।

আরও পড়ুন:নাবালিকার মৃ*ত্যু নিয়ে রাজনীতি চাই না,জাঙ্গিপাড়ায় ঢুকতেই বাধার মুখে পড়ল কংগ্রেসের প্রতিনিধি দল

জাঙ্গিপাড়া শ্রীহট্ট এলাকায় দশমীর রাতে নিখোঁজ হয় বছর বারোর এক নাবালিকা। তিন দিন পর বাড়ি থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে একটি ঝিলে তার মৃতদেহ ভাসতে দেখেন স্থানীয়রা। এই ঘটনায় ওই কিশোরীর মৃত্যুকে ঘিরে রহস্য ঘনিয়েছে। ইতিমধ্যেই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এরপরই গ্রামে ঢুকতে চেয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়ে কংগ্রেসের প্রতিনিধিদল। একই পরিণতি হয় বিজেপি নেতৃত্বেরও। তবে আইনজীবী তথা বিজেপি নেত্রী প্রিয়াঙ্কা টিব্রেওয়ালের নেতৃত্বে পরে জাঙ্গিপুর থানায় পৌঁছয় বিজেপি প্রতিনিধিদল। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিজেপি নেত্রী বলেন, ” দ্রুত দোষীদের খুঁজে শাস্তি না দেওয়া হলে তদন্তের স্বার্থে হাই কোর্টে যাব”।

এদিকে গ্রামবাসীরা বলেন,  ‘‘ঘটনার সময় কাউকে পাশে পাওয়া যায়নি। এখন ওরা লাশের রাজনীতি করতে এসেছে।’’ তাই তাঁরা এই মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি চান না।

নাবালিকার পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, , ‘‘কোনও রাজনৈতিক দলকে আমরা গ্রামে ঢুকতে দিচ্ছি না। যখন মেয়েটি হারিয়ে গিয়েছিল তখন কোনও দল আমাদের পাশে দাঁড়ায়নি। এখন ওদের আসার প্রয়োজন নেই। প্রশাসন যা করার করছে।’’

এ প্রসঙ্গে জাঙ্গিপাড়ার বিধায়ক স্নেহাশিস চক্রবর্তী বলেন,  “পুলিশ প্রশাসনের কাছে বলা হয়েছে দ্রুত এর তদন্ত করে দোষীদের খুঁজে বার করতে হবে এবং আইনত তার চরমতম শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। আমাদের দলের তরফেও পুলিশের কাছে আবেদন করা হয়েছে দোষীদের খুঁজে বার করার জন্য। কিন্তু, বিরোধীদল ওখানে আসছে। তারা আসতেই পারে। কিন্তু, অযথা মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করা উচিত নয়। একটি নাবালিকার মৃত্যু হয়েছে । তা নিয়ে রাজনীতি করা ঠিক নয় একেবারেই। বিরোধী দল এসে মিথ্যা রাজনীতি করতে তা তাঁরা মেনে নেবেই কেন?”

নাবালিকার পরিবারের দাবি, সে নিখোঁজ হওয়ার সময় তার কাছে একটি সাইকেল ছিল। তবে সেই সাইকেলটির খোঁজ এখনও পাওয়া যায়নি।  রবিবার সকাল থেকে গ্রামের বিভিন্ন জলাশয়ে বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের কর্মীদের নামিয়ে সেই সাইকেলের খোঁজ করা হয় ।পাশাপাশি, ড্রোনের সাহায্য এলাকার বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালায় পুলিশ। গ্রামবাসীদের দাবি মেনে শনিবার সন্ধ্যার পর পুলিশ-কুকুর দিয়েও তল্লাশি চালানো হয় এলাকায়। জাল ফেলা হয় পুকুরেও। নাবালিকার সাইকেলটি খুঁজে পাওয়া গেলে তদন্তে আরও গতি আসবে বলে মনে করছে পুলিশ।

Previous articleবান্ধবী ও তার মায়ের ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি দেখিয়ে ব্ল্যাকমেল! অয়ন খু*নে নয়া তথ্য