The Modi Question: ‘ইমেজ’ সামলাতে ব্যস্ত মোদি সরকার মুছল ডেরেকের টুইট

মোদি বিরোধী তথ্যচিত্র বিবিসির: দেশের অভ্যন্তরে ইমেজ ঠিক রাখতে দাঁত-নখ বের করল কেন্দ্রের মোদি সরকার

গুজরাট দাঙ্গায় মোদির ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বিবিসির তথ্যচিত্র(BBC Documentry) গোটা বিশ্বে সাড়া ফেলে দিয়েছে। ভারতে এই তথ্যচিত্র দেখা না গেলেও এর জেরে বিশ্বে মোদির ইমেজে কালি পড়তে শুরু করেছে। তবে দেশের অভ্যন্তরে ইমেজ ঠিক রাখতে দাঁত-নখ বের করল কেন্দ্রের মোদি সরকার(Modi Govt)। এই ইস্যুকে তুলে ধরে শনিবার একটি টুইট করেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন(Derek O’Brien)। মোদি সরকারের নির্দেশে সেই টুইট মুছে দিল টুইটার। কেন্দ্রের তরফে টুইটারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, বিবিসির তথ্যচিত্র সংক্রান্ত বিষয়ে কেউ টুইট করলে তা ব্লক করে দেওয়ার জন্য। বিবিসির তথ্যচিত্রের YouTube লিঙ্ক যে সকল টুইটে শেয়ার করা হয়েছে তা ব্লক করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের তরফে।

সম্প্রতি ব্রিটেনের সংবাদ সংস্থা বিবিসি তাদের একটি চ্যানেলে তথ্যচিত্র ‘দ্য মোদি কোয়েশ্চেন’ সম্প্রচার করে। দু’দশক আগে গুজরাতের তৎকালীন সাম্প্রদায়িক হিংসার পরিপ্রেক্ষিতে সেই রাজ্যে সংখ্যালঘুদের পরিস্থিতি তুলে ধরা হয়েছে ওই তথ্যচিত্রে। ওই তথ্যচিত্র ভারতে দেখা না গেলেও বিশ্বের অন্যত্র এবং সামাজিক মাধ্যমে(অংশ বিশেষ) দেখা যাচ্ছে। এই তথ্য চিত্রে ফুটে উঠেছে গুজরাট দাঙ্গায় মোদির ভুমিকা। এই তথ্যচিত্র প্রকাশের পর বিজেপি ও কেন্দ্রের বিদের মন্ত্রকের তরফে প্রবল আপত্তি তোলা হয়। যদিও বিবিসি স্পষ্ট জানায়, বিস্তারিত গবেষণার ভিত্তিতেই ওই তথ্যচিত্র তৈরি করা হয়েছে। এই ইস্যুতে বিতর্ক যখন চরম আকার নিয়েছে ঠিক সেই সময়ে তৃণমূলের রাজ্যসভা সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েনের টুইট করে জানান, “নরেন্দ্র মোদির সংখ্যালঘুদের প্রতি যে ঘৃণা, তা এক ঘণ্টার ওই তথ্যচিত্র থেকেই স্পষ্ট ফুটে উঠেছে।”

দেশের অভ্যন্তরে এই তথ্যচিত্র নিয়ে চর্চা একেবারেই ভালচোখে দেখেনি কেন্দ্রের মোদি সরকার। এরপরই কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের তরফে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়, এই সংক্রান্ত লিঙ্ক শেয়ার করা হলে তা অবিলম্বে ব্লক করার জন্য। কেন্দ্রের নির্দেশমতো ডেরেক সহ ৫০-এর অধিক টুইট ব্লক করা হয়েছে টুইটারের তরফে। নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে তিনি একটি স্ক্রিনশট পোস্ট করেছেন ডেরেক। সেখানে যা লেখা হয়েছে, তাতে স্পষ্ট যে টুইটারকে ডেরেকের ওই টুইট ডিলিট করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। পাশাপাশি তাকে টুইট ডিলিটের খবর মেল করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। টুইটারে তিনি লিখেছেন, সেন্সরশিপ চলছে। বিবিসি-কে নিয়ে তৈরি হওয়ার মোদিকে নিয়ে তথ্যচিত্র প্রসঙ্গে আমি আমার টুইটার হ্যান্ডেলে কিছু টুইট করেছিলাম। মোদি সংখ্যালঘুদের কী চোখে দেখেন, বিবিসির এক ঘণ্টার সেই তথ্যচিত্র সেটা ফাঁস করে দিয়েছে। সেই টুইট ডিলিট করা হয়েছে এবং মেল করে আমায় জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। দেশে আবার ফিরেছে সেন্সরশিপ। টুইট ডিলিট করলেও যে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে তৃণমূলের আন্দোলন বন্ধ হবে না সেটাও জানিয়ে দিয়েছেন ডেরেক।

Previous articleEntertainment : ‘এমার্জেন্সি’ শেষ, তাই নেপথ্যের কথা ফাঁস কঙ্গনার !