দেরিতে শুরু বাংলা বনাম ওড়িশা ম‍্যাচ, দিনের শেষে ২ উইকেট হারিয়ে ৯৬ রান ওড়িশার

এদিন পিচ এবং মাঠ ভিজে থাকায় খেলা শুরু হল দেরিতে। শেষ পর্যন্ত টস হয় ১২.৩০টায় ।

মঙ্গলবার রঞ্জি ট্রফি এলিট গ্রুপের ম‍্যাচে নামে বাংলা বনাম ওড়িশা। তবে নির্ধারিত সময়ের চার ঘণ্টা পর টস হয় ইডেনে। এদিন পিচ এবং মাঠ ভিজে থাকায় খেলা শুরু হল দেরিতে। শেষ পর্যন্ত টস হয় ১২.৩০টায় । প্রথম দিনে মাত্র ৩৫ ওভার খেলা হল। দু’টি সেশন নষ্ট। মঙ্গলবার রঞ্জিতে গ্রুপ পর্বে বাংলার শেষ ম্যাচ শুরু হল বিতর্ক দিয়ে।

পিচ বিতর্কে দায় কার? এই নিয়ে মুখ খুলল সিএবি। সিএবি-এর তরফ থেকে বোর্ডের কিউরেটর অশোক বর্মার কাঁধেই সব দায় চাপিয়ে দেওয়া হল। এই নিয়ে স্থানীয় পিচ প্রস্তুতকারক বীরেন্দ্র কুমার সিং মঙ্গলবার বলেন, “বোর্ড কিউরেটর অশোক বর্মা ১৮ জানুয়ারি এখানে এসেছেন। তাঁর নির্দেশ মতোই আমরা কাজ করেছি। উনি যা বলেছেন তাই করেছি। জল দেওয়া এবং পিচে রোলার চালানো ওঁর নির্দেশ মতোই হয়েছে। আমরা নিজে থেকে কিছু করিনি।”

সিএবি সচিব নরেশ ওঝা বলেন, “গতকাল থেকেই পিচ নিয়ে সভাপতি স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা হচ্ছে আমার। রঞ্জির নিয়ম অনুযায়ী পিচ বোর্ডের হাতে চলে যায়। অশোক বর্মা যে ভাবে বলেছেন, এখানকার কিউরেটররা সে ভাবে কাজ করেছে। আমার মনে হয় বোর্ডের কিউরেটর বুঝতে পারেননি আমাদের এখানকার মাটিতে কতটা জল প্রয়োজন। আমাদের জন্য এটা একটা বিরাট শিক্ষা। ভবিষ্যতে বোর্ডকে আমরা আবেদন করব যাতে পিচ আমাদের কিউরেটরের দায়িত্বে থাকে। কারণ সেই সব থেকে ভাল চেনে পিচটাকে। তাই স্থানীয় কিউরেটরের কথা বোর্ডের কিউরেটর যাতে শোনে সেই আবেদন আমরা বোর্ডের কাছে করব। যদিও এখনই বোর্ডকে এ ব্যাপারে কিছু জানানো হচ্ছে না।”

এদিকে রঞ্জিতে গ্রুপ পর্বে বাংলার শেষ ম‍্যাচে টসে জিতে বল করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলার অধিনায়ক মনোজ তিওয়াড়ি। প্রথমে ব‍্যাট করতে নেমে প্রথম দিনের শেষে ২ উইকেট হারিয়ে ৯৬ রান ওড়িশার। ওড়িশার হয়ে ক্রিজে রয়েছেন শান্তুনু মিশ্র এবং শুভ্রাংশু সেনাপতি। ৪১ রানে অপরাজিত শান্তুনু। ৯ রানে অপরাজিত শুভ্রাংশু। বাংলার হয়ে একটি করে উইকেট নেন ঈশান পোড়েল এবং আকাশ দীপ।

ইতিমধ্যেই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে গিয়েছেন মনোজরা। নিয়মরক্ষার ম্যাচকে যদিও হাল্কা ভাবে নিতে রাজি নন বাংলার কোচ লক্ষ্মীরতন শুক্লা। অপরাজিত থেকেই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে চান তাঁরা।

এদিকে মঙ্গলবার পিচ নিয়ে বাংলার অধিনায়ক মনোজ তিওয়াড়ি বলেন,” সকাল থেকে তেমন রোদ না ওঠায় পিচের ভিজে ভাব থেকে গিয়েছে। নিরপেক্ষ পিচ প্রস্তুতকারক হয়তো ভেবেছিলেন রোদ উঠলে জল শুকিয়ে যাবে। কিন্তু সেটা না হওয়ায় খেলা শুরু হতে দেরি হল।”

এখানেই না থেমে মনোজ আরও বলেন,” সোমবার রাতেই সিএবি সভাপতির সঙ্গে কথা হয়েছে। আমার সব কথাই উনি শুনেছেন। যে বিষয়গুলো নিয়ে আমাদের চিন্তা ছিল, সেগুলো ওঁনাকে বলেছি। সিএবি সভাপতি ইতিবাচক ভাবেই নিয়েছেন বিষয়টা। তিনি দেখছেন।”

আরও পড়ুন:২০২২ একদিন এবং টেস্ট দলের ঘোষণা করল আইসিসি, দলে ভারতের তিন ক্রিকেটার

 

 

 

Previous articlePMAY: আবাস যোজনার অনুমোদনের সময়সীমা বাড়াল কেন্দ্র