“বন্ধু হও বাড়াও হাত”, ডিজিটাল স্বেচ্ছাসেবক তৈরির নতুন চমক সিপিএমের

সময়ে কত কিছুই বদলায়! এককালে সরকারি কাজকর্মে কম্পিউটারের ব্যবহার রুখতে পথে নেমে আন্দোলন করেছিল যে সিপিএম, তারাই এখন নয়া অবতারে তথ্যপ্রযুক্তির সর্বাধিক সুফল পেতে মরিয়া। সংগঠনের বাঁধভাঙা ক্ষয় আটকাতে এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচারকে অগ্রাধিকার দিয়ে দলের ডিজিটাল স্বেচ্ছাসেবক হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছে তারা। সিপিএমের এই নতুন মডেলের নাম “বন্ধু হও বাড়াও হাত”। বলা হচ্ছে, পথে নেমে লড়াইয়ের পাশাপাশি দলের পক্ষে জনমত তৈরিতে সমান্তরালভাবে কাজ করবেন ডিজিটাল স্বেচ্ছাসেবকরা। দলের পক্ষ থেকে এই অভিযানে কাজ করার জন্য আগ্রহীদের নাম নথিভুক্ত করার আবেদন জানানো হয়েছে।

তবে এই ডিজিটাল উদ্যোগ যে তৃণমূলের “দিদিকে বলো” কর্মসূচির পাল্টা নয়, তা বোঝাতে সিপিএম পলিটব্যুরোর সদস্য মহম্মদ সেলিম বলেন, এটা কারুর অনুকরণ নয়। পেশাদার ভাড়া করে আমরা কাজ করছি না, সে সামর্থ্যও নেই। অমুককে বলো তমুককে বলো’র মতো টপ-ডাউন অ্যাপ্রোচেও আমরা কাজ করব না, আমরা যাব বটম-আপ অ্যাপ্রোচে।

#CPIM Digital লোগো ব্যবহার করে ডিজিটাল স্বেচ্ছাসেবক হওয়ার আবেদন জানিয়েছে সিপিএম রাজ্য কমিটি। এরাজ্যে তৃণমূল ও বিজেপির মোকাবিলায় এই কর্মসূচির নাম “বন্ধু হও বাড়াও হাত”। আমজনতার মধ্যে থেকে নাম নথিভুক্তির আবেদন চাওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, যে সমস্ত ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর 1) সমীক্ষা 2) তথ্য সন্নিবিষ্ট ও বিশ্লেষণ 3) কোনও বার্তা বা ভাবনার পরিকল্পনা করে সুসমন্বিত প্রচারের লক্ষ্যে টিম তৈরির অভিজ্ঞতা এবং ক্ষমতা ও দক্ষতা আছে তাঁদের স্বাগত। আমাদের লক্ষ্য, বাংলার সাংস্কৃতিক, ধর্মীয়, আঞ্চলিক ভাষাগত এবং জাতিগত বৈচিত্র্য রক্ষার জন্য অনুকূল পরিবেশ তৈরি করা। শান্তি ও ঐক্য রক্ষা, ব্যক্তিগত মর্যাদা, আত্মসম্মান, নিরাপত্তা-সুরক্ষা, জীবন ও জীবিকাকে সুরক্ষিত রাখা। জনসাধারণের মধ্যে বাম, গণতান্ত্রিক, ধর্মনিরপেক্ষ এবং প্রগতিশীল ভাবনার প্রসার ঘটানো।