দিল্লিতে পরিকল্পিত গণহত্যাকে  দাঙ্গার তকমা দেওয়া হয়েছে, অভিযোগ মমতার

রবিবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ কলকাতায় সভা করতে এসেছিলেন। সেই সময় রাজপথে তাঁকে কালো পতাকা দেখিয়েছিলেন বাম-কংগ্রেস সমর্থকরা। অনেকেই তখন প্রশ্ন করেছিলেন, এ ব্যাপারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর দল নীরব কেন। কেন দিল্লির হিংসার ঘটনা নিয়ে কোনও কথা বলছেন না বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
মমতা তাঁদের হতাশ করলেন না।সোমবার সকালে নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামের মঞ্চ থেকে তাঁর অভিযোগ, গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে। যদিও কারও নাম সরাসরি মুখে উচ্চারণ না করে তিনি বলেন, “দিল্লিতে যা হয়েছে তাতে আমাদের অনেকের হৃদয় কাঁদছে, আমরা মর্মাহত, দুঃখিত। গত কয়েকদিন ধরে দিল্লিতে যে মানুষ খুন হয়েছে তা প্ল্যানড জেনোসাইড, গণহত্যা। তার পর তাকে সাম্প্রদায়িক হিংসার চেহারা দেওয়া হয়েছে। আমরা একে ধিক্কার জানাচ্ছি”।
তিনি বলেন, আমরা ধিক্কার জানাই দিল্লিতে যা ঘটেছে। আইন হাতে তুলে না নিয়ে আমরা প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করব। ‘কারা গদ্দার’ তা মানুষ ঠিক করবেন। দিল্লি সরকারের কাছ থেকে যেন ঔদ্ধত্য না শিখি।পরিকল্পিত গণহত্যাকে পরে দাঙ্গার তকমা দেওয়া হয়েছে।

দিল্লির মানুষের জন্য অর্থ সংগ্রহ করব। যতটুকু পারি সাহায্য করব। ডেরেক সুদীপকে বলব ব্যবস্থা করতে। গুজরাট মডেল দিল্লিতে লাগু করেছে। চলতে দেব না। আগামী বুধবার দিল্লি নিয়ে ছি ছি মিছিল। এক ঘন্টা করে জেলায়, ব্লকে, শহরে এই মিছিল করা হবে।