নির্মম: সৎকার নিয়ে টানাপোড়েনে বাড়িতেই দুদিন পড়ে করোনা রোগীর দেহ

দুদিন ধরে বাড়িতেই ফ্রিজে পড়ে রইল করোনা পজিটিভ রোগীর দেহ। ঘটনা খাস কলকাতার। আমর্হাস্টস্ট্রিটের এক আবাসনে সোমবার দুপুর তিনটে মৃত্যু হয় এক বৃদ্ধের। করোনার উপসর্গ থাকায় ওই দিন সকালে পরীক্ষার জন্য তাঁর লালারস পাঠানো হয়। দুপুরে তাঁর মৃত্যু হলে চিকিৎসক পিপিই পরে গিয়ে ডেথ সার্টিফিকেট দিয়ে দেন। তবে রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করতে বলেন তিনি। পরিবারের তরফ থেকে থানায় যোগাযোগ করা হয়। থানা থেকে স্বাস্থ্য ভবনের হেল্পলাইনে ফোন করে যোগাযোগ করতে বলা হয়। কিন্তু পরিবারের অভিযোগ হেল্পলাইন নম্বরে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও কেউ ফোন তোলেননি।

এরপর দেহ সংরক্ষণ করার চেষ্টা করেন তাঁরা। চিকিৎসক লিখেও দেন। কিন্তু কোনও সংরক্ষণ কেন্দ্র দেহ নিতে চাইনি
পুলিশকে জানিয়ে কোন সুরাহা হয়নি বলে অভিযোগ মৃতের আত্মীয়দের। ফলে দেহ থাকে আবাসনে ফ্ল্যাটেই।
মঙ্গলবার সকালে কলকাতা পুরসভায় গেলে তারাও স্বাস্থ্যভবন যাওয়ার পরামর্শ দেয়। কিন্তু স্বাস্থ্যভবন থেকে জানানো হয় টেস্টে রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করতে।
মঙ্গলবার দেহ রাখার জন্য একটি ফ্রিজ জোগাড় করেন মৃতের আত্মীয়রা। কিন্তু পরিবারের অভিযোগ, ততক্ষণে দেহ পচতে শুরু করে। মঙ্গলবার রাত এগারোটায় রিপোর্ট পাওয়া যায় এবং দেখা যায় রিপোর্ট পজিটিভ। বুধবার সকালে স্বাস্থ্যভবনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা কলকাতা পুরসভা খবর দেয়। এরপর কলকাতা পুরসভার উদ্যোগে দেহ সৎকারের ব্যবস্থা হয়।
কিন্তু একই বাড়িতে দুদিন ধরে প্রিয়জনের দেহ নিয়ে সারা পরিবারের বাস করাটা নির্মম। আত্মীয়রা জানান, অসম্ভব মানসিক যন্ত্রণার মধ্যে দিয়ে দিন কেটেছে তাঁদের। একই সঙ্গে পরিবারের সদস্য এবং প্রতিবেশীদের স্বাস্থ্যের বিষয়ে তাঁরা যথেষ্ট চিন্তিত। যদিও এই বিষয় নিয়ে স্বাস্থ্য দফতরের তরফ থেকে কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।