৭২ ঘণ্টা ধরে চিনকে পর্যবেক্ষণ করবে ভারত

চিনের মুখের কথায় আর বিশ্বাস করতে চায় না ভারত। শান্তি সহাবস্থানের ক্ষেত্রে চিন কোনও পদক্ষেপ নিলে তা পর্যবেক্ষণ করবে ভারত। ৭২ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণের পর ভারত সমতুল্য ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। কারণ এর আগে বেজিং সীমান্ত থেকে সরে যাবে বললেও বাস্তবে তা হয়নি। উপরন্তু সামরিক সরঞ্জাম ও সেনাবাহিনী সীমান্তে মোতায়েন করেছে চিন।

সাউথ ব্লকের ধারণা শুধুমাত্র সীমান্ত সংঘর্ষ চিনের লক্ষ্য নয়। ভারতের উপর চাপ তৈরিই উদ্দেশ্য। তাই পাল্টা চাপের কৌশল নিয়ে এগোচ্ছে দিল্লি। দিল্লির সঙ্গে বেজিংয়ের কূটনৈতিক সম্পর্কের অবনতি হলে ভারত মহাসাগর দিয়ে চিনা বাণিজ্যও যে ঝুঁকির মধ্যে পড়বে। প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার দু’দেশের সেনাবাহিনীর কোর কম্যান্ডার স্তরে বৈঠক হয়েছে। তাতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখাকে দুই দেশই মর্যাদা দেবে। দুই দেশের বাহিনী নিজেদের মধ্যে অন্তত ১০০ মিটারের তফাৎ রেখে টহলদারি চালাবে।