বাবার হাতে ‘খুন’ মদ্যপ ছেলে, থানায় আত্মসমর্পণ

প্রতিদিনই মদ খেয়ে বাড়ি ফিরে বৃদ্ধ বাবা-মা, স্ত্রী এবং সন্তানের উপর অত্যাচার করতেন জলপাইগুড়ির বাসিন্দা সুনীল দেবনাথ। তাতেই অতিষ্ঠ হয়ে সোমবার ভোররাতে তাঁকে খুন করেন তাঁর বাবা বছর ৭৩- এর অনিল দেবনাথ। অন্তত থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করে এই বয়ান দিয়েছেন ওই বৃদ্ধ। তিনি জানান, ছেলে তেমন কাজকর্ম করতেন না। কিন্তু প্রতিদিন মদ্যপান করতেন। অভিযোগ, স্ত্রী, সন্তানের দায়িত্ব নিতেন না, কিন্তু প্রতিদিন মত্ত অবস্থায় বাড়ি ফিরে স্ত্রী-সন্তান এমনকী বৃদ্ধ বাবা-মাকে মারধর করতেন সুনীল। ছেলের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে গিয়েছিলেন তাঁরা। সহ্যের সীমা পার হয়ে যাওয়ায় সোমবার ভোররাতে ছুরি দিয়ে ছেলের গলা কেটে দেন অনিল দেবনাথ। তারপরে ভোরের আলো ফুটতেই থানায় গিয়ে অস্ত্র-সহ আত্মসমর্পণ করেন। তাঁকে নিয়েই বাড়ি গিয়ে ঘর থেকে সুনীলের দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তখনও বাড়ির বাকি সদস্যরা জানতেন না কী হয়ে গিয়েছে বাড়িতে। অনিল দেবনাথের অভিযোগ, ছেলেকে না মারলে একদিন তাঁদেরই পিটিয়ে খুন করে ফেলতেন সুনীল। ঘটনায় বৃদ্ধকে গ্রেফতার করে তদন্ত শুরু করেছে জলপাইগুড়ি থানার পুলিশ।