২০ বছরের স্বপ্নপূরণ, হটসিটে বসে জানালেন কলকাতার রুণা সাহা

স্বপ্নটা দেখতে শুরু করেছিলেন আজ থেকে ২০ বছর আগেই। সেই যখন থেকে শুরু হয়েছিল, তখন থেকেই তিনি ছিলেন নিয়মিত দর্শক। ২০ বছর পর শুক্রবার তিনি নিজে বসলেন হটসিটে। স্বপ্নপূরণ হল মুর্শিদাবাদের মেয়ে, কৃষ্ণনগরের বৌমা তথা বর্তমানে কলকাতার বাসিন্দা রুণা সাহার। এতদিন যে মানুষটার গলার স্বর গমগম করত টিভি স্ক্রিনে, তাঁর সামনে তখন সেই স্বপ্নের মানুষ। আর শোয়ের নাম ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’।

তবে এই হটসিটে পৌঁছনোর জার্নিটা নেহাতই সহজ নয়। অনেক ধাপ পেরিয়ে শো অবধি পৌঁছালেও খেলতে হয় ‘ফাস্টেস্ট ফিঙ্গার ফার্স্ট’। কিন্তু রুণাকে খেলতে হয়নি সেটাও। রুণা যে শুধু হটসিটে বসেছেন, তাই নয়, তিনি জিতে নিয়েছেন ২৫ লক্ষ টাকা।

আরও পড়ুন : নৈশ অভিযানে শহরে কড়া নজরদারি কলকাতা পুলিশের, নিয়মভঙ্গের অভিযোগে আটক ৩১১৫

কী করে হল এই অসাধ্য সাধন? রুণা জানালেন, তিনি ও তাঁ স্বামী গৌতম সাহা, দুজনেই অমিতাভ বচ্চনের বড় ফ্যান। ২০০০ সালে যখন প্রথম KBC শুরু হয়, তখন তাঁদের ঘরে কেবল কানেকশান ছিল না। পাশের বাড়িতে গিয়ে টিভি দেখতেন তাঁরা। সেই থেকেই একটু একটু করে শুরু হয় স্বপ্নের জাল বোনা। কিন্তু হতে-হতেও যেন হয় না। ৪৩ বছর বয়সী রুণাকে এর জন্য নানা হাসি-বিদ্রুপের শিকারও হতে হয়েছে বহুবার। কিন্তু হাল ছাড়েননি তিনি।

আরও পড়ুন : বিদ্যাসাগরের বই বিতরণ করে নজির উত্তর কলকাতার যুবদের

তাই এবছর শুরুর দিকে যখন শো থেকে ফোন আসে, তিনি কাউকে জানাননি। জুলাই মাসে ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাকা হয় তাঁকে। তখন স্বামীকে জানিয়েছিলেন। বাড়ি থেকেই ভিডিও কলে অডিশন হয়। ইন্টারভিউতে মনোনিত হন তিনি। ডাক আসে মুম্বই যাওয়ার। শুক্রবার যে এপিসোডটা দেখানো হয়েছে, সেটি ২৮ সেপ্টেম্বর শ্যুট হয়। “পুরো বিষয়টিতেই আমাকে আমার স্বামী গৌতম সাহা, মেয়ে দেবশ্রীতা সাহা এবং পরিবারের সকলেই ভীষণ উৎসাহ দিয়েছেন।” জানালেন রুণা।

শো থেকে ২৫ লক্ষ টাকা জিতেছেন কলকাতার বাসিন্দা রুণা সাহা। ৫০ লক্ষ টাকার প্রশ্নটার জন্য আর খেলেননি তিনি। যদিও, উত্তর ঠিক-ই দিয়েছিলেন। তিনি শোয়ে অংশগ্রহণ করায় খুব খুশি তাঁর মুর্শিদাবাদ ও কৃষ্ণনগর দুই পরিবার।