দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চলে জলকষ্ট আজই মিটে যেতে পারে

দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চলে গত কয়েকদিন ধরে চলা জলকষ্ট আজই মিটে যেতে পারে। সব কিছু ঠিকঠাক চললে সন্ধ্যার আগেই দুর্গাপুর ব্যারেজ মেরামতির কাজ শেষ হবে আর তার পরেই স্বাভাবিক পানীয় জল সরবরাহ শুরু করা যাবে বলে মনে করছে জেলা প্রশাসন। রাজ্যের তরফেও একই আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।
শুক্রবার সকালে জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, দুপুরের মধ্যে দুর্গাপুর ব্যারেজ মেরামতের কাজ শেষ হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে সন্ধ্যা থেকে জল সরবরাহও স্বাভাবিক হয়ে যাবে। ইঞ্জিনিয়ারদের কথা অনুযায়ী, মাইথন ও পাঞ্চেত বাঁধ থেকে জল ছাড়ার পর দুর্গাপুর ব্যারেজে জল আসতে প্রায় ৭-৮ ঘণ্টা সময় লাগে। ব্যারেজ মেরামতির কাজ শেষ হলেই ডিভিসি কর্তৃপক্ষকে জল ছাড়ার কথা জানিয়ে দেবে রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন- অমিতের “গোপন” বৈঠক ফেসবুক লাইভ করে ধমক খেলেন সৌমিত্রর স্ত্রী! ডিলিট করলেন ভিডিও
বিপর্যয়ের পাঁচ দিন পর বুধবার দুপুর থেকে পূরোদমে দুর্গাপুর ব্যারাজের ভাঙা ৩১ নং লকগেট মেরামতির কাজ শুরু হয়। সেচ দফতরের নির্দিষ্ট নকশাকে সামনে রেখে ডিএসপি’র কারিগরি সাহায্যে শুরু হয় মেরামতি। কিন্তু ‘গ্রাউন্ড জিরো’তে পরিস্থিতি অনুযায়ী বদল হতে থাকে মেরামতির নকশা। বিপর্যস্ত ৩১ নম্বর লক গটকে পুরো সিল করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সেচ দফতর।পানীয় জল সরবরাহ করার প্রয়োজনে জলাধারে ৪ হাজার ৯৯৭ একর ফিট জল প্রয়োজন। জলাধারে ২১১.৫ ফিট জল দাঁড়ালেই সেই জল ক্যানেলে ঢুকবে।
সেই জল ক্যানেলে গেলে তা পাম্প করে পরিস্রুত করার পরই মিলবে পানীয় জল।