কোভিড রুখতে অতুলনীয় কাজ, মমতাকে বিশেষ সম্মান

কোভিড সংক্রমণ রোগ নিরলস কাজ করেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর নেতৃত্বে সামনে থেকে কাজ করেছেন সরকারি কর্মী থেকে আধিকারিক, পুলিশ-প্রশাসনের সবাই। আর সেই কাজেরই স্বীকৃতি মিলল এবার। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই পরিশ্রমকে সন্মান জানাতে তাঁকে নেতাজি রাষ্ট্রীয় সম্মানে সম্মানিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ওড়িশার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমানন্দ বিসওয়াল। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বাংলা সরকার করোনা পরিস্থিতি সাফল্যের সঙ্গে মোকাবিলা করেছে। মুখ্যমন্ত্রী নিজে রাস্তায় নেমে সমস্ত কাজ পরিচালনা করেছেন। সতর্কবার্তা দিয়েছেন, গণ্ডি কেটে বুঝিয়ে দিয়েছেন শারীরিক দূরত্ব বিধি কীভাবে মানতে হবে। দিনের পর দিন নবান্ন থেকে সমস্ত জেলার আধিকারিকদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন, বৈঠক করেছেন। তাঁর এই নজিরবিহীন কাজের জন্য ভূয়সী প্রশংসা করেছেন নেতাজি জন্মভূমি যাত্রা কমিটির উপদেষ্টা হেমানন্দ বিসওয়াল। তিনি বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেশের একমাত্র মুখ্যমন্ত্রী যিনি করোনা সংক্রমণের ভয় না করেই রাস্তায় নেমে মানষকে সচেতন করেছেন। রাজ্যবাসীকে মাস্ক পরা এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা নিয়ে সচেতন করেছেন। অসংখ্য বাঙালি পরিযায়ী শ্রমিকের প্রাণ বাঁচিয়েছেন বলেও মত বিসওয়ালের। সেকারণেই এই পুরস্কারের জন্য তাঁর থেকে কেউ যোগ্য নেই। স্বামী বিবেকান্দ ও নেজাজির আদর্শ মেনেই মানবতার স্বার্থে কাজ করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী।

করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গ্লোবাল অ্যাডভাইসারি কমিটি গঠন করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যার নেতৃত্বে রয়েছেন নোবেল জয়ী অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতাই প্রথম যিনি এই নিয়ে চিন্তা করেছেন এবং তার জন্য কমিটি গঠন করেছেন।

এর পাশাপাশি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাটির সৃষ্টি প্রকল্পের জন্য সাধুবাদ জানিয়েছেন ওড়িশার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন- দিলীপ ঘোষের কালীপুজো উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র নারায়ণগড়