মইদুল মৃত্যুর তদন্তে সাত সদস্যের সিট গঠন করল লালবাজার

নবান্ন অভিযানে বাম কর্মী মইদুল মিদ্যার মৃত্যু ঘিরে ক্রমশ উত্তপ্ত হচ্ছে রাজ্য রাজনীতি।
সেই মৃত্যুর ঘটনার তদন্তে সাত সদস্যের সিট গঠন করল লালবাজার।
প্রাথমিক তদন্তের পর লালবাজারের তরফে জানানো হয়েছে, নবান্ন অভিযানের দিন ঘটনাস্থলের থেকে অনেকটাই পিছনের দিকে একটি জায়গায় মইদুলকে দেখা গিয়েছিল। সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে এই তথ্য হাতে পেয়েছে লালবাজারের গোয়েন্দা বিভাগ। কিন্তু নবান্ন অভিযানের শেষে পুলিশের জলকামানে বিধ্বস্ত মিছিল যখন ছত্রভঙ্গ, সেই সময় জানবাজারের দিকে একটি হোটেলের সামনের রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা যায় মইদুল মিদ্যাকে। সেই সময় তিনি ওখানে কিভাবে গেলেন, তা এখনও স্পষ্ট নয় তদন্তকারীদের কাছে। এই বিষয়ে আরও গভীরে খতিয়ে দেখতে স্থানীয়দের জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। খতিয়ে দেখা হচ্ছে বিভিন্ন তথ্য প্রমাণ।
পুলিশের লাঠিচার্জের জেরে গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে মৃত্যু হয় মইদুল মিদ্দার, এমন অভিযোগই করা হয়েছে বাম ছাত্র-যুব সংগঠনগুলির পক্ষ থেকে । সুর চড়িয়েছেন বাম শীর্ষ নেতৃত্বও। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।
বামেদের তরফে অভিযোগ পুলিশের লাঠির আঘাতেই মৃত্যু হয়েছে মিদ্দার। যদিও লালবাজার সূত্রে দাবি, প্রাথমিকভাবে সিসিটিভি ফুটেজ থেকে এখনও তেমন কিছু তথ্য পায়নি পুলিশ। সিপিআইএম নেতা তথা চিকিৎসক ফুয়াদ হালিমের তরফে পুলিশের কাছে জমা দেওয়া সব মেডিক্যাল রিপোর্ট বিশেষজ্ঞ ডক্টরদের দিয়ে বিশ্লেষণ করা হবে, জানান হয়েছে লালবাজার সূত্রে।