ফের আলোচনা নির্ভয়ার দোষীদের ফাঁসিতে ঝোলানো পবন জহ্লাদকে নিয়ে, এবার নতুন দায়িত্ব

ফের আলোচনায় পবন জহ্লাদের নাম। কিছুদিন আগে পর্যন্ত  তাঁকে চেনা তো দূর, তাঁর নামটাও কেউ জানতেন না গোটা দেশের মানুষ। নির্ভয়ার দোষীদের ফাঁসিতে ঝুলিয়েছিলেন তিনি। চারজন আসামীকে ফাঁসিকাঠে ঝুলিয়েছিলেন পবন জহ্লাদ। সেই পবন জহ্লাদের কাঁধে এবার নতুন দায়িত্ব। এবার একজন মহিলাকে ফাঁসিতে ঝোলানোর দায়িত্ব নিতে হবে তাঁকে।

স্বাধীনতার পর এই প্রথম ভারতে কোনও মহিলার ফাঁসি হতে চলেছে। নিজের পরিবারের সাতজন সদস্যকে নৃশংসভাবে খুন করেছিল শবনম। প্রায় ১২ বছর পর শবনমকে ফাঁসির নির্দেশ দিয়েছে আদালত। রাষ্ট্রপতির কাছে শাস্তি পুনর্বিবেচনার আবেদন করেছিল শবনম। কিন্তু সেই আবেদন খারিজ হয়েছে। শবনমের ফাঁসি মকুবের আবেদন গিয়েছিল রাষ্ট্রপতি (president) রামনাথ কোবিন্দের কাছে। অপরাধের নৃশংসতার বিচার করে তিনিও ফাঁসির আদেশ বহাল রেখেছেন। ফলে শবনমের ফাঁসি এখন স্রেফ সময়ের অপেক্ষা। মথুরা (Mathura) জেলে মহিলাদের ফাঁসিঘরে শবনমকে ফাঁসি দেওয়া হবে। বহুদিন ধরে অব্যবহৃত সেই ঘর। এমনকী ফাঁসিকাঠের ব্যবহারও এর আগে কখনও হয়নি। তাই জেল কর্তৃপক্ষের চাপ বেড়েছে। ডেথ ওয়ারেন্ট জারি হলেই এই মহিলা অপরাধীর ফাঁসি হবে। তার আগে সমস্ত প্রস্তুতি সেরে রাখতে চাইছে জেল কর্তৃপক্ষ। এই ঘর তৈরি হয়েছিল ১৫০ বছর আগে। তবে কোনওদিন সেখানে ফাঁসি হয়নি। শবনমের ফাঁসির দড়ি আনা হবে বিহারের বক্সার থেকে।

নির্ভয়ার দোষীদের ফাঁসিতে ঝোলানো পবন জহ্লাদ ইতিমধ্যে দুবার ফাঁসিকাঠের পরীক্ষা করেছেন। পবন এর আগে নির্ভয়ার চারজন দোষীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়েছিলেন। এবার শবনমের ফাঁসির দায়িত্ব তাঁর কাঁধেই থাকবে। শবনমের শাস্তি যথাযথ, এমনই জানিয়েছেন পবন। তিনি আরও জানিয়েছেন, লখনউ থেকে শবনমের ডেথ ওয়ারেন্ট এলেই তিনি ফাঁসির চূড়ান্ত প্রস্তুতি শুরু করে দেবেন।

আরও পড়ুন- বৈশালীর বিরুদ্ধে তোলাবাজির অভিযোগ বিজেপি নেতার

Advt