চূড়ান্ত গোপনীয়তায় দক্ষিণবঙ্গে আব্বাসের দলের সঙ্গে আসন বণ্টন চূড়ান্ত বাম-কংগ্রেসের

চূড়ান্ত গোপনীয়তার মধ্যে দক্ষিণবঙ্গের আসন সমঝোতা চূড়ান্ত হল বাম-কংগ্রেস ও ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট (আইএসএফ)-এর মধ্যে। শনিবার মধ্যরাতে হুগলির বৈদ্যবাটিতে এই বৈঠক হয়। তিন দলের শীর্ষ নেতাদের উপস্থিতিতেই আসন সমঝোতা হয়েছে।
সিপিএমের পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম, বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান, কংগ্রেসের রাজ্যসভার সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য ও আইএসএফের চেয়ারম্যান নৌসাদ সিদ্দিকি ওই বৈঠকে উপস্থিত ছি‌লেন। আসন সমঝোতা নিয়ে আইএসএফের তরফে জানানো হয়েছে , দক্ষিণবঙ্গের আসন নিয়ে আলোচনা প্রায় শেষ পর্যায়ে । উত্তরবঙ্গ নিয়েও বিবেচনা করা হচ্ছে । আগামী দিনে বাংলাকে এই জোটই পথ দেখাবে।
বৃহত্তর স্বার্থে আসন ৪৪-এর নীচেও নামতে পারে, আবার ৪৫-এর উপরেও হতে পারে।
বৈঠকে দক্ষিণবঙ্গের ৮০ শতাংশ আসনের রফা চূড়ান্ত হয়ে গেলেও, উত্তরবঙ্গে আইএসএফের বেশ কিছু আসনের দাবি নিয়ে কংগ্রেসের আপত্তি আছে । তাই সিপিএমকেই উত্তরবঙ্গে কিছু বাড়তি আসন ছাড়ার দাবি করেছে আইএসএফ। বিষয়টি নিয়ে ফের শীঘ্রই বৈঠকে বসবে বাম ও কংগ্রেস।
সিপিএম নেতা মহম্মদ সেলিম বলেছেন, আলোচনা ফলপ্রসূ হয়েছে। আইএসএফ এই প্রথম সমঝোতায় এল। আমাদের দু’পক্ষের জোটের ফর্মুলা মেনেই তৃতীয় পক্ষকে যুক্ত করা হয়েছে। আরও কিছু দল আছে, যাদের আমাদের আসন ছাড়তে হবে।
আগামী দু’-এক দিনের মধ্যে ফের বৈঠকে বসে জোটকে চূড়ান্ত রূপ দেওয়া হবে। কংগ্রেসের বর্ষীয়ান নেতা প্রদীপ ভট্টাচার্য বলেছেন, আমরা ত্রিপাক্ষিক আলোচনায় এই প্রথম বসলাম। আরও আলোচনা করতে হবে। কারণ ২৯৪টি আসন নিয়ে আলোচনা করতে সময় লাগবে ।
২৮ ফেব্রুয়ারি ব্রিগেডের সভায় আব্বাসের দলের উপস্থিতর বিষয়ে নৌসাদ জানিয়েছেন , আসন ভাগ নিয়ে আলোচনা চলছে। দু’-এক দিনের মধ্যে পুরোপুরি স্পষ্ট হয়ে যাবে।