অভিমান কেটেছে আরাবুলের, রেজাউলের হয়েই ঝাঁপিয়ে পড়তে চান ভাঙরের তৃণমূল নেতা?

শুক্রবার তৃণমূলের (TMC) প্রার্থী তালিকা (Candidate List) ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই বিক্ষিপ্ত কিছু ক্ষোভ-বিক্ষোভ ধরা পড়ছে শাসক দলের অন্দরে। তার আঁচ কোনও কোনও ক্ষেত্রে বাইরেও এসে পড়ছে। তবে দক্ষিণ ২৪ পরগনার ভাঙড়ে ( Bhangar) সেই ক্ষোভের আগুনটা যেন একটু বেশি মাত্রায় ছড়িয়েছে। এবার তৃণমূলের গড় ভাঙড়ে প্রার্থী ডাক্তার রেজাউল করিম। কিন্তু ‘বহিরাগত প্রার্থী’কে ভাঙড়ের মাটিতে ঢুকতে দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আরাবুল ইসলামের (Arabul Islam)অনুগামীরা।

ভাঙড়ের তৃণমূল নেতা আরাবুল ইসলামের অনুগামীদের বক্তব্য, ২০১৬ সালে সিপিএম থেকে আসা রেজ্জাক মোল্লাকে ক্যানিং পূর্ব বিধানসভা থেকে নিয়ে এসে ভাঙড়ের প্রার্থী করা হয়েছিল। রেজ্জাক ভাঙড়ে সময় তো দেনইনি, বরং তাঁর আমলে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকট হয়েছে। আরাবুলই এ বার টিকিট পাবেন বলে ধরে নিয়েছিলেন তাঁর অনুগামীরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার শুরু হয়ে যায়। কিন্তু সেই আশা ধাক্কা খেয়েছে প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পরে।

অন্যদিকে, পেশায় চিকিৎসক রেজাউল করিম (Rezaul Karim) বীরভূমের বাসিন্দা হলেও বর্তমানে থাকেন বেহালায়। তাঁকে ভাঙড়ের মানুষ চেনেন না বলেও ক্ষোভ জানিয়েছে আরাবুল গোষ্ঠী। বহিরাগত প্রার্থী আরাবুলের বিরোধী গোষ্ঠীর নেতাদেরও।

এই বিতর্কের মাঝেই আরাবুলের ফোনে যোগাযোগ করেন দলের এক জেলা নেতা। ফোন পেয়ে আরাবুল কলকাতায় আসেন। সেখানে শীর্ষ নেতৃত্ব আরাবুলের সঙ্গে বৈঠক করেন। তাঁকে বোঝানো হয়। সূত্রের দাবি, বরফ গলছে। রেজাউল করিমের হয়েই এবার হয়তো ভোটের ময়দানে ঝাঁপিয়ে পরবেন আরাবুল।

এ দিকে, সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট ঘুরছে এ দিন সকাল থেকে। তাতে বলা হয়েছে, ভাঙড় থেকে এমআইএমআই প্রার্থী হচ্ছেন আরাবুল। তাঁর ছেলে হাকিমুল ইসলাম অবশ্য বলেন, ‘‘দল ছাড়ার কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। এমআইএমের সঙ্গে কোনও কথাও হয়নি। সোশ্যাল মিডিয়ায় যা বলা হচ্ছে, তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।’’

আরাবুল বলেন, ‘‘দলের সিদ্ধান্তে ভাঙড়ের মানুষ অখুশি। তাঁরা ভাঙড়ের কোনও ভূমিপুত্রকেই প্রার্থী হিসাবে চাইছেন। বহিরাগত প্রার্থীকে মানা হবে না বলে জানিয়েছেন। যদিও আমি এখনও এই বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেইনি। সকলের সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নেব।’’

এই পরিস্থিতিতে প্রার্থী রেজাউল করিম বলেন, ‘‘রবিবার তৃণমূল ভবনে দল বৈঠক ডেকেছে। সেখানে সমস্ত বিষয়ে আলোচনা হবে। দল আমাকে প্রার্থী করেছে। সেই মত আমি সকলের কাছে যাব। আরাবুল-সহ সমস্ত নেতৃত্বকে আমার প্রয়োজন। সকলের সঙ্গে কথা বলব।’’

আরও পড়ুন:ধুতি-পাঞ্জাবীতেই ব্রিগেড থেকে আজ পরিবির্তনের ডাক দেবেন মিঠুন

Advt