প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় ২০০০ কোটি টাকার দুর্নীতি ফাঁস করল সিবিআই

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায়(PM Abas Yojana) এবার বিশাল টাকার দুর্নীতি প্রকাশ্যে এলো। ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খুলে হাজার হাজার কোটি টাকার গৃহ ঋণ দেখিয়ে ভর্তুকি বাবদ কেন্দ্রের কাছ থেকে তাঁরা প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠল দুই প্রোমোটারের(promoters) বিরুদ্ধে। এই দুর্নীতিতে মূল অভিযুক্ত দিওয়ান হাউজিং ফাইন্যান্স লিমিটেড( ডিএইচএফএল) সংস্থার ২ প্রোমোটারের নাম কপিল এবং ধীরজ ওয়াধওয়ান। জালিয়াতি এবং দুর্নীতির অভিযোগে আগে থেকেই জেল খাটছেন কপিল এবং ধীরজ। এই দুই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে নতুন করে মামলা দায়ের করেছে সিবিআই(CBI)।

পিসি আর্থিক ভাবে পিছিয়ে পড়া মানুষের মাথার ওপর পাকা ছাদ দিতে ২০১৫ সালে শুরু হয় প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা প্রকল্প। এই প্রকল্পের যে বিপুল পরিমাণ দুর্নীতি শুরু হয়েছে বুধবার সেই তথ্য প্রকাশ্যে আনে সিবিআই। সিবিআই সূত্রে জানা গিয়েছে ফ্ল্যাট বাড়ি কেনার জন্য ঋণ পাইয়ে দেওয়ার ব্যবসা রয়েছে অভিযুক্ত ওই সংস্থার। আর সেই সুযোগটাকে কাজে লাগিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় সংস্থাটি। অথচ সরকারি হিসেবে দেখানো হয় এই প্রকল্পের আওতায় বহু মানুষ তাদের কাছ থেকে মোট ১৪ হাজার কোটি টাকার গৃহ ঋণ নিয়েছে। আর সেই হিসেবে মোট ১৮৮০ কোটি টাকা ভর্তুকি প্রাপ্য তাদের।

গোয়েন্দা সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৮-র ডিসেম্বরে বিনিয়োগকারীদের কাছে প্রথম সরকারি ভর্তুকি পাওয়ার কথা প্রকাশ করে ডিএইচএফএল। জানায়, সরকারি প্রকল্পের আওতায় ৮৮ হাজার ৬৫১টি গৃহঋণ মঞ্জুর করেছে তারা। তার ভিত্তিতে ভর্তুকিবাবদ ৫৩৯ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা হাতে এসেছে তাদের। বকেয়া রয়েছে ১ হাজার ৩৪৭ কোটি ৮০ লক্ষ টাকা। বিষয়টি সন্দেহজনক হওয়ায় শুরু হয় তদন্ত। ফরেনসিক অডিট করে দেখা যায় সংস্থার ভুয়ো শাখা দেখিয়ে একাধিক ভুয়া অ্যাকাউন্ট তৈরি করা হয়েছিল সরকারি টাকা হাতানোর জন্য। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর নড়েচড়ে বসেছে তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই।

Advt