বিজেপির কথায় বুথে নিয়ম বদল: মুকুল-শিশিরের বিস্ফোরক অডিও প্রকাশ করে অভিযোগ তৃণমূলের

নির্বাচন কমিশনের(election commission) তরফে পোলিং এজেন্ট(polling agent) নিয়োগের নিয়ম বদল নিয়ে শনিবার কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে তৃণমূল। পাশাপাশি এই নিয়ম বদল বিজেপিকে সুবিধা পাইয়ে দিতে আনা হয়েছে বলে অভিযোগ তোলা হয়েছে শাসক দলের তরফে। এহেন অবস্থার মাঝেই কাদের ষড়যন্ত্রে এই নিয়ম আনা হয়েছে তার অডিও প্রকাশের হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ(Kunal Ghosh)। এবার প্রকাশ্যে এলো সেই অডিও। যেখানে শোনা যাচ্ছে, বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়(Mukul Roy) বিজেপি নেতা শিশির বাজোরিয়াকে(Shishir bajoria) নির্দেশ দিচ্ছেন নির্বাচন কমিশনের কাছে পোলিং এজেন্ট নিয়োগের নিয়মে বদল আনার জন্য প্রস্তাব দিতে। শনিবার এই ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পর স্বাভাবিকভাবেই চাপে গেরুয়া শিবির।

শনিবার তৃণমূলের তরফে মুকুল রায় ও শিশির বাজোরিয়ার যে ভিডিও প্রকাশ্যে আনা হয়েছে সেখানে মুকুল রায়কে বলতে শোনা যাচ্ছে, নির্বাচন কমিশনের কাছে ২টি প্রস্তাব রাখার জন্য যার মধ্যে একটি হলো বুথে পোলিং এজেন্ট নিয়োগের নিয়ম বদল করতে হবে। এ প্রসঙ্গে শিশিরকে সরাসরি মুকুল বলেন, রাজ্যে এমন অনেক বুথ রয়েছে যেখানে এজেন্ট দেওয়া বিজেপি পক্ষে সম্ভব হবে না। ফলে সেই সমস্ত জায়গায় বাইরে থেকে এজেন্ট নিয়োগ করতে হবে। যার জন্য এই নিয়মে বদল প্রয়োজন। পাশাপাশি তিনি এটাও জানিয়ে দেন, এক্ষেত্রে কোনো লিখিত নিয়ম নেই এটা প্রশাসনিক নির্দেশ অনুযায়ী হয়। আমাদের শুধুমাত্র বলতে হবে, কেন আমরা এটা চাইছি। স্বাভাবিকভাবেই মুকুল রায়ের পরিকল্পনা অনুযায়ী নির্বাচনে কোনরকম সর্বদলীয় আলোচনা ছাড়া এই নিয়ম লাগু হয়ে যাওয়ায় সরব হয়েছে তৃণমূল।

আরও পড়ুন:অভিযোগ, পাল্টা অভিযোগ সরগরম প্রথম দফা

নির্বাচন কমিশনের এহেন নিয়ম বদল প্রসঙ্গে বিজেপির বিরুদ্ধে শনিবার তোপ দেগেছেন তৃণমূল মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। এই অডিও প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘রাজ্যে নিজেদের এজেন্ট না থাকার জন্য এবং এলাকায় বহিরাগতদের ঢোকানোর আয়োজন করে দিতে নির্বাচন কমিশনের ওপর প্রভাব খাটিয়ে নিয়ম বদল করা হয়েছে বিজেপির তরফে।’ পাশাপাশি তিনি আরো বলেন, ‘নির্বাচনের রীতি নীতিকে প্রভাবিত করে কিভাবে নিজেদের অনুকূলে আনা যায় পরিকল্পিতভাবে সেই চেষ্টা করা হয়েছে বিজেপির তরফে। এমন একটি গুরুতর নিয়ম বদল সময় কোনরকম সর্বদলীয় বৈঠক করার প্রয়োজন বোধ করেনি নির্বাচন কমিশন।’

Advt