Weather Update: অবশেষে স্বস্তি! ঘূর্ণাবর্ত আর কালবৈশাখীর জোড়া সুখবর হাওয়া অফিসের

তাপমাত্রা আরও কমবে বলে শনিবার জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে, সোম এবং মঙ্গলবার কালবৈশাখীর সম্ভাবনা কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের কয়েকটি জেলায়।

হাঁসফাঁস করা গরম থেকে এবার কি তবে মুক্তি? বারবার এই প্রশ্নের মুখে পড়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর (Alipur Weather Department)। অবশেষে মিলল সুখবর! আসছে কালবৈশাখী (Kalbaisakhi), সঙ্গে ঘূর্ণাবর্তের পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় বৃষ্টি ভিজবে বঙ্গ (Rain in Bengal)।

সিনেমার খিদে মেটাতে চলে এল দেবের নতুন স্বাদের  ছবি ‘কিশমিশ’

দক্ষিণবঙ্গে আর তাপপ্রবাহের (heat wave) সম্ভাবনা নেই এমনটাই জানিয়ে দিল আলিপুর আবহাওয়া দফতর (Alipur Weather Department)। সকাল থেকেই রোদের তেজ বেশ কম, একটানা তাপ্প্রবাহ নেই,মাঝে মাঝেই মেঘের দেখা মিলছে আকাশে। তাপমাত্রা আরও কমবে বলে শনিবার জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে, সোম এবং মঙ্গলবার কালবৈশাখীর সম্ভাবনা কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের কয়েকটি জেলায়।

কোন কোন জেলায় বৃষ্টি?

নদিয়া, মুর্শিদাবাদ, বীরভূমে বৃষ্টির সম্ভাবনা বেশি। পুবালি হাওয়ার দাপটে বাতাসে জলীয় বাষ্প বাড়ায় বজ্রগর্ভ মেঘ তৈরি হওয়ায় বৃষ্টি হচ্ছে বলে জানাল হাওয়া অফিস। তবে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি থেকে এখনই মিলছে না রেহাই। গতকালের পর আজকেও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হবে। এমনকি শিলাবৃষ্টির সম্ভাবনাও আছে। সোম ও মঙ্গলবার বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির সঙ্গে বইতে পারে দমকা ঝোড়ো হাওয়া। সঙ্গে থাকছে কালবৈশাখীর পূর্বাভাস। হাওয়া অফিসের দাবি, সোম – মঙ্গল দু’দিন ঝড়-বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হতে পারে। হাওয়ার গতিবেগ হতে পারে ঘন্টায় ৫০ থেকে ৬০ কিলোমিটার। আগামী চারদিন দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির অনুকূল পরিবেশ বজায় থাকবে।

আজ পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে তাপপ্রবাহ চলবে। বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম ও পশ্চিম বর্ধমান, এই পাঁচ জেলায় তাপপ্রবাহের সতর্কতা। আজ কলকাতা ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩৬.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি কম৷ দিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২৮.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি কম। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ থাকবে সর্বাধিক ৭৮ শতাংশ, ন্যূনতম ৭৩ শতাংশ।

প্রসঙ্গত গতকাল অর্থাৎ শুক্রবার সন্ধ্যে থেকেই প্রকৃতির রূপ বদলাতে শুরু করে। কাল সন্ধ্যের দিকে কলকাতা সহ পার্শ্ববর্তী জেলায় বৃষ্টি, কোথাও কোথাও ঝড় হয়। আর তারপর থেকেই গরম যেন একটু কমেছে বলছেন সাধারণ মানুষ। আবহবিদরা বলছেন স্থানীয় বজ্রগর্ভ মেঘ থেকে এই বৃষ্টি হয়েছে। বিক্ষিপ্ত অল্প কিছু এলাকা জুড়ে এই বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে আজও। এর ফলেই কমেছে তাপমাত্রা।

অন্যদিকে আবার দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড়ের ভ্রূকুটি। মে মাসের ৪ ও ৫ তারিখ নাগাদ ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হতে পারে যার জেরে মাসের প্রথম সপ্তাহে প্রবল ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা বলা হয়েছে।

Previous articleরাজ্য সরকারের স্কুলশিক্ষা বিশেষজ্ঞ কমিটিতে রদবদল করলেন শিক্ষামন্ত্রী