গড়ফায় তরুণীর রহস্যমৃত্যু! গ্রেফতার প্রেমিক

প্রতীকী ছবি

দশ বছরের প্রেম শীঘ্রই পরিণতি পেতে চলেছিল। কিন্তু তার আগেই সব শেষ। সম্পর্কের পরিণতি পাওয়ার আগেই রহস্যজনকভাবে মৃত্যু হল গড়ফার তরুণী। ঘর থেকে উদ্ধার হয় প্রেমিকার মৃতদেহ। মৃতার পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে  হবু বরকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করতেই খুনের ঘটনার কথা স্বীকার করেন তিনি।  ইতিমধ্যেই  হাওড়া থেকে পুলিশ তরুণীর প্রেমিকাকে গ্রেফতার করেছে।


আরও পড়ুন:জ্যোতিবাবুর রেকর্ড ভাঙবেন মমতা


পুলিশ সূত্রের খবর, মৃতার পরিবারের অভিযোগের পর হাওড়া থেকে আটক করা হয় তাঁর প্রেমিককে। এরপর চলে জিজ্ঞাসাবাদ। পুলিশের কাছে মৃতার প্রেমিক পঙ্কজ দাস স্বীকার করেছেন, প্রেমিকাকে গলা টিপে শ্বাসরোধ করে  খুন করেছেন তিনিই। কিন্তু কেন? উত্তরে পঙ্কজ জানান, বেশ কয়েকদিন ধরেই তাঁদের সম্পর্কের অবনতি হয়। বিয়ে ঠিক হওয়ার পরও পঙ্কজের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে চাইছিলেন না সুস্মিতা। এই নিয়ে শুরুই হয় বচসা। এর জেরেই প্রেমিকাকে খুন করেন পঙ্কজ। তবে কী ত্রিকোণ প্রেমের জেরেই খুন? তদন্তে নেমেছে পুলিশ।


প্রসঙ্গত, রবিবার গড়ফায় নিজের বাড়ি থেকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার হয় ২৬ বছরের এক তরুণী। তাঁর নাম সুস্মিতা দাস। গড়ফার বাসিন্দা তিনি। হাবড়ার বাসিন্দা পঙ্কজ দাসের সঙ্গে ভালোবাসার সম্পর্ক ছিল তাঁর। বিয়ের দিনও ঠিক হয়ে গিয়েছিল। শুরু হয়েছিল কেনাকাটি। রবিবার দুপুর ১২টা নাগাদ হবু স্ত্রীর বাড়িতে যান পঙ্কজ। তরুণীর বাড়িতে দীর্ঘক্ষণ ছিলেন তিনি। দুপুরে একসঙ্গে খাওয়া দাওয়াও করে। এরপর বিকেলে ৪ টা নাগাদ ফিরে যান পঙ্কজ।এরপরই সুস্মিতাকে তাঁর ঘরে অচৈতন্য অবস্থায় দেখতে পান পরিবারের সদস্যরা। হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তরুণীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।এরপরই তদন্ত শুরু করে পুলিশ। ইতিমধ্যেই মৃতদেহটি ময়নাতদন্তে পাঠান হয়েছে। যদিও ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এখনও আসেনি।

Previous articleজ্যোতিবাবুর রেকর্ড ভাঙবেন মমতা