Rajasthan: ৭ মাস ধরে ধর্ষণ! অভিযুক্তকে কুপিয়ে খুন দশম শ্রেণীর ছাত্রীর

প্রথমে এক ৪৫ বছরের ব্যক্তি, পরে তার তিন সঙ্গী মিলে লাগাতার ধর্ষণ (Rape)  আর ভয় দেখানো - এই ভাবেই কেটে যাচ্ছিল মাসের পর মাস। কিন্তু আর সহ্য করতে পারলেন না অভিযুক্ত কিশোরী।

প্রতীকী ছবি

দিনের পর দিন চলছে শারীরিক অত্যাচার (physical torture)। এক দুই তিন করে লাগাতার প্রায় ৬- ৭ মাস। নারকীয় অত্যাচার সহ্য করতে করতে রাজস্থানের (Rajasthan) কিশোরী হয়ে উঠেছিলেন দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। পরিত্রাণ পেতে শেষমেষ কুপিয়ে খুন (murder)  করলেন অভিযুক্তকে। ইতিমধ্যেই দশম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে আটক করেছে পুলিশ (police arrested that girl)।

প্রথমে এক ৪৫ বছরের ব্যক্তি, পরে তার তিন সঙ্গী মিলে লাগাতার ধর্ষণ (Rape)  আর ভয় দেখানো – এই ভাবেই কেটে যাচ্ছিল মাসের পর মাস। কিন্তু আর সহ্য করতে পারলেন না অভিযুক্ত কিশোরী। নির্যাতন থেকে ‘মুক্তি’ পেতে মাঠে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে খুন করার অভিযোগ উঠল তাঁর বিরুদ্ধে। গত ১৭ মে একটি মাঠের ধারে ওই ব্যক্তির দেহ উদ্ধার হয়। ময়নাতদন্তের পর খুনের ব্যাপারে নিশ্চিত হয় পুলিশ। এরপরই খুনির সন্ধান শুরু হয়। শুরুর দিকে কিছুতেই এই কেসের সমাধান সূত্র খুঁজে পায়নি পুলিশ। অবশেষে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হওয়া ছেঁড়া কাপড়ের টুকরো ও আরও কিছু সূত্র থেকে পুলিশের সন্দেহ দৃঢ় হয় অভিযুক্ত কিশোরীর প্রতি। তাঁকে আটক করে থানায় নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করাতে সবটা স্বীকার করেন তিনি।

জানা গেছে অভিযুক্ত কিশোরী রাজস্থানের (Rajasthan) আলওয়ারের বাসিন্দা। দশম শ্রেণীতে পড়ে সে। একটি ছেলের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। প্রেমিকের সঙ্গে দিব্যি ফোনে কথা চলত। কিশোরী পুলিশকে জানিয়েছেন যে, একদিন তিনি অভিযুক্ত ব্যক্তির ফোন থেকে তাঁর প্রেমিককে ফোন করেছিলেন।  কিশোরী জানতেন না যে ওই ব্যক্তি কলটি রেকর্ড করে রেখেছিলেন। পরে সেটি সবার কাছে ফাঁস করে দেওয়ার হুমকি দিয়েই শুরু হয় ধর্ষণ। এই ভাবে ব্ল্যাকমেল করে দিনের পর দিন কিশোরীকে ধর্ষণ করেন ওই ব্যক্তি নিজে। এরপর তাঁর তিন সঙ্গীর সঙ্গেও শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত হতে কিশোরীকে বাধ্য করা হয় বলে অভিযোগ। দিনের-পর-দিন, মাসের-পর-মাস অত্যাচার সহ্য করতে করতে, ওই ব্যক্তিকে খুন করার পরিকল্পনা করেন দশম শ্রেণির ওই ছাত্রী। সেইমতো মদ্যপ অবস্থায় ওই ব্যক্তিকে মাঠে নিয়ে গিয়ে সেখানেই তাঁকে ধারাল অস্ত্রের কোপ মেরে খুন করেন তিনি। মৃত ব্যক্তির সঙ্গে আরও যে তিন-চারজন প্রতিনিয়ত ধর্ষণ করতেন কিশোরীকে, তাঁদের বিরুদ্ধে পকসো আইনে মামলা রুজু করে সন্ধান চালাচ্ছে পুলিশ।


Previous articleএবার রাসবিহারী বসুকে অপমান বিজেপির, নাড্ডার ক্ষমা চাওয়ার দাবি তুললেন কুণাল