রাষ্ট্রপতি পদে মনোনয়নপত্র পেশ করে মমতা-সোনিয়াকে ফোন দ্রৌপদী মুর্মুর !

রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে দুই নেত্রীর সমর্থন চাইলেন তিনি।যদিও বিরোধী শিবিরের তরফে ইতিমধ্যেই যশবন্ত সিনহার নাম ঘোষণা করা হয়েছে৷ ফলে, সৌজন্য দেখিয়ে ফোন করলেও তৃণমূল এবং কংগ্রেসের সমর্থন দ্রৌপদী আদৌ পাবেন কি না তা নিয়ে সংশয় আছে

রাষ্ট্রপতি পদে শুক্রবার মনোনয়নপত্র পেশ করলেন এনডিএ-র রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী দ্রৌপদী মুর্মু। আর তারপরেই তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীকে ফোন করেন। কিন্তু এই ফোনের কারণ কী ? আসলে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে দুই নেত্রীর সমর্থন চাইলেন তিনি।যদিও বিরোধী শিবিরের তরফে ইতিমধ্যেই যশবন্ত সিনহার নাম ঘোষণা করা হয়েছে৷ ফলে, সৌজন্য দেখিয়ে ফোন করলেও তৃণমূল এবং কংগ্রেসের সমর্থন দ্রৌপদী আদৌ পাবেন কি না তা নিয়ে সংশয় আছে।
শুক্রবার সকালে সংসদ ভবনে মোট চারটি মনোনয়ন জমা দেওয়া হয়েছে তাঁর তরফে। প্রথমটিতে দ্রৌপদী মুর্মুর পক্ষে প্রস্তাবক প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং অনুমোদক প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। দ্বিতীয় সেটের মনোনয়নে দ্রৌপদী মুর্মুর প্রস্তাবক বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা এবং উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। এই সেটে যোগী আদিত্যনাথ হেমন্ত বিশ্ব শর্মা সহ বিজেপি শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী প্রস্তাবক হিসেবে রয়েছেন। তৃতীয় সেটের মনোনয়নে হিমাচল এবং হরিয়ানার বিধায়করা রয়েছেন। চতুর্থ সেটের মনোনয়নে নাম আছে গুজরাটের বিধায়কদের।
বৃহস্পতিবার সকালে দিল্লি আসেন দ্রৌপদী মুর্মু। রাজধানী পৌঁছেই একের পর এক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও বিজেপি নেতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তিনি।দিল্লি পৌঁছেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং-এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী। সন্ধ্যায় সাক্ষাৎ করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার সঙ্গে। তার আগে দুপুরে তিনি উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডুর সঙ্গেও দেখা করেন। বিজেপি-র কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এবং নেতারা দলের রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
কিন্তু আরও একটি প্রশ্ন উঠেছে। আর তা হল, আসন্ন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে তিনি নিজের রাজ্যের ক্ষমতাসীন বিজেডি-র সমর্থন পাবেন কিনা। এই বিষয়ে দ্রৌপদী মুর্মু বলেন, “আমি ওড়িশা বিধানসভার সমস্ত সদস্য এবং সাংসদদের সমর্থন পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদী।” তিনি আরও বলেন, “আমি মাটির মেয়ে। একজন ওড়িয়া হিসাবে আমাকে সমর্থন করার জন্য সকল সদস্যকে অনুরোধ করার অধিকার আমার আছে।”

আরও পড়ুন- চাকরি পাওয়া ২৭৮৭ জনের আবেদনপত্র কোর্টে দেখাতে পারল না পর্ষদ
আদিবাসী নেত্রী থেকে অতীতে রাজ্যপাল হয়েছিলেন দ্রৌপদী। তিনি জানিয়েছেন, টেলিভিশন মারফত তাঁর রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হওয়ার খবর জানতে পারেন। তিনি অবাক এবং আনন্দিত! বলেন, “আমি যেমন বিস্মিত, তেমনই আনন্দিত। প্রত্যন্ত ময়ূরভঞ্জ জেলার একজন উপজাতীয় মহিলা হিসাবে আমি দেশের শীর্ষ পদের প্রার্থী হওয়ার কথা ভাবতেও পারিনি।’ তিনি জানান, রাষ্ট্রপতি পদের জন্য একজন উপজাতীয় মহিলাকে মনোনীত করার যে সিদ্ধান্ত বিজেপি নিয়েছে তা ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ, সবকা বিশ্বাস’ স্লোগানেরই প্রতিফলন।
প্রসঙ্গত, ১৮ জুলাই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। গত মঙ্গলবার দেশের ১৬তম রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে এনডিএ তাদের প্রার্থী হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন ঝাড়খণ্ডের প্রাক্তন রাজ্যপাল তথা আদিবাসী সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি দ্রৌপদী মুর্মুকে(Draupadi Murmu)। দ্রৌপদী মুর্মুর নাম প্রস্তাব করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

Previous articleচাকরি পাওয়া ২৭৮৭ জনের আবেদনপত্র কোর্টে দেখাতে পারল না পর্ষদ