গরিব চাইলেই তার স্বপ্নপূরণ করতে পারে: নিজের উদাহরন টেনে বার্তা রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদীর

ভারতে রাষ্ট্রপতির(President of India) মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে আমিই প্রথম যে স্বাধীনতার(Indipendent) পর জন্মগ্রহণ করেছে। ভারতের নাগরিকদের কাছে আমার আবেদন, স্বাধীনতা সংগ্রামীদের প্রত্যাশা পূরণ করতে আমাদের সকলকে একজোট হতে হবে। সোমবার দেশের ১৫ তম রাষ্ট্রপতি হিসাবে শপথবাক্য পাঠ করার পর দেশবাসীর উদ্দেশে একথাই জানালেন ৬৪ বছরের দ্রৌপদী মুর্মু(Droupadi Murmu)। একইসঙ্গে নিজের উদাহরণ টেনে জানালেন, আমার দেশে যে কোনও গরিব চাইলেই তার স্বপ্নপূরণ করতে পারেন। সোমবার দেশের ১৫ তম রাষ্ট্রপতি হিসাবে শপথবাক্য পাঠ করার পর দেশবাসীর উদ্দেশে একথাই জানালেন ৬৪ বছরের দ্রৌপদী মুর্মু।

এদিন শপথবাক্য পাঠ করা দেশের নয়া রাষ্ট্রপতি জানান, স্বাধীনতার ৫০ বছর বয়সে তিনি নিজের রাজনৈতিক কেরিয়ার শুরু করেন। বর্তমানে স্বাধীনতার ৭৫ বছর বয়সে এসে তিনি রাষ্ট্রপতি হিসাবে দায়িত্ব পেলেন। দ্রৌপদী জানান, দেশের রাষ্ট্রপতি হওয়া প্রতিটি দরিদ্র মানুষের প্রাপ্তি, এটা তাঁর ব্যক্তিগত প্রাপ্তি নয়। তবে তাঁর রাষ্ট্রপতি হওয়া ভারতের দরিদ্র মানুষদের দেখা স্বপ্নের বাস্তবায়ন বলেই মনে করেন দ্রৌপদী।

নয়া রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী এদিন আরও জানান, এই পদ দেশের দরিদ্র মানুষের জন্য সমস্ত দায়িত্ব পালন করার। পাশাপাশি এদিন তিনি “এক ভারত- শ্রেষ্ঠ ভারত” গড়ার ডাকও দিয়েছেন। নয়া রাষ্ট্রপতি জানান, এটাই আমাদের গণতন্ত্রের আসল শক্তি, যে শক্তির মাধ্যমে একজন দলিত, গরিব পরিবারের মেয়ে হয়েও দেশের সর্বোচ্চ পদের দায়িত্ব নিতে পারেন। এছাড়া এদিন দ্রৌপদী দেশের সমস্ত বোন এবং মেয়েরা আরও স্বতন্ত্র হয়ে দেশের সমস্ত পরিসরে নিজেদের মেলে ধরার আর্জি জানিয়েছেন।

সোমবার সকাল ১০ টা ১৫ মিনিটে সংসদের সেন্ট্রাল হলে রাষ্ট্রপতি হিসাবে প্রথম ভাষণ দেন দ্রৌপদী। সংবিধান অনুযায়ী এদিন তাঁকে শপথ বাক্য পাঠ করান সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এন ভি রামন। দেশের সর্বোচ্চ সাংবিধানিক পদে নির্বাচিত হওয়া দ্রৌপদী দেশের সর্বকনিষ্ঠ রাষ্ট্রপতি। এদিন বক্তব্য পেশ করার সময় দ্রৌপদী বলেন, সকলের আশীর্বাদে আমি দেশের রাষ্ট্রপতি হয়েছি। নিজেকে অত্যন্ত সৌভাগ্যবতী মনে হচ্ছে।


Previous articleফুলঝোড় উপসংশোধনাগারে পাঁচিল টপকে পালানো ৩ বন্দির একজনকে ধরল পুলিশ