যোগীরাজ্যে মহিলার শ্লীলতাহানি বিজেপি নেতার, প্রতিবাদে সরব তৃণমূল

বিজেপির নারী সুরক্ষা শুধু মুখেই। কার্যক্ষেত্রে বিজেপি শাসিত রাজ্যে নারী নির্যাতন ভয়াবহ আকার নিয়েছে। এই তালিকায় বাদ যাচ্ছেন না খোদ বিজেপি নেতারাও। যোগী রাজ্য উত্তরপ্রদেশে এক মহিলার সঙ্গে অভব্য ব্যবহার ও গালিগালাজ করার অভিযোগ উঠল স্থানীয় বিজেপির কিষাণ মোর্চার নেতা শ্রীকান্ত ত্যাগীর (Shrikant Tyagi) বিরুদ্ধে। গোটা ঘটনার ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পর অভিযুক্ত বিজেপি নেতাকে গ্রেফতারের জন্য উত্তরপ্রদেশ পুলিশের ডিজিকে (Uttar Pradesh Director General of Police ) নির্দেশ দিয়েছেন জাতীয় মহিলা কমিশনের চেয়ারপার্সন (National Commission for Women ) রেখা শর্মা। ঘটনার পর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত শ্রীকান্ত।

সম্প্রতি নয়ডার গ্র্যান্ড ওমাক্সে সোসাইটি নামে একটি আবাসনের সামনে আচমকাই স্যাঙাতদের নিয়ে চারাগাছ রোপন করতে থাকেন স্থানীয় বিজেপির কিষাণ মোর্চার নেতা শ্রীকান্ত ত্যাগী (Shrikant Tyagi)। ওই কাজে আপত্তি জানান আবাসনের এক মহিলা বাসিন্দা। সঙ্গে সঙ্গেই তাঁর উপরে চড়াও হন বিজেপি নেতা। গায়ে হাত তোলার পাশাপাশি ওই মহিলা ও তাঁর স্বামীকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজও করেন। শ্রীকান্ত ত্যাগীর (Shrikant Tyagi) ওই কীর্তির কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। সমালোচনার ঝড় উঠতেই অভিযুক্ত নেতার সঙ্গে দুরত্ব তৈরি করে বিজেপির স্থানীয় নেতৃত্ব। যদিও বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ওই নেতার ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পর মুখ পুড়েছে গেরুয়া শিবিরের।

এদিকে ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পর ঘটনার কড়া নিন্দা জানিয়েছে তৃণমূল। শনিবার এক ভিডিও বার্তায় তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার বলেন, “ভারতীয় জনতা পার্টি শুধু বড় বড় কথা বলে। নারী নিরাপত্তার কথা, নারী সুরক্ষার কথা, বেটি পড়াও বেটি বাঁচাও-এর কথা। আসলে মুখে বললেও তারা এসব কথা নিজেরা বিশ্বাস করে না। বিজেপি নেতা শ্রীকান্ত ত্যাগী যেভাবে হুমকি দিচ্ছেন অশ্লীল কথাবার্তা বলছেন তা অত্যন্ত নিন্দনীয়। ওনার কঠোর শাস্তি হওয়া উচিত।”

Previous articleবিপুল ব্যবধানে জয়, ভারতের নয়া উপরাষ্ট্রপতি হলেন জগদীপ ধনকড়