১১১ টাকায় তন্তুজের শাড়ি: প্রতিযোগিতায় ২১ তারিখ ‘জনতা শাড়ি’ বাজারে আনছে খাদি

একশো এগারো টাকার তন্তুজর জনতা শাড়ি তন্তুজ কেন্দ্রে পাওয়া যায়। বস্ত্রশিল্পে তন্তুজ, মঞ্জুষা বা খাদি যে বিশ্ববাংলার মানকে আরও বাড়িয়ে তুলবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না বলে মনে করেন মন্ত্রী।

দুবছরের অতিমারি কাটিয়ে এবার শারদোৎসবে মেতেছে বাংলা। বিকিকিনিও চলছে দেদার। সস্তায় ভালো জিনিস বাজারে আনার চেষ্টা সব প্রতিষ্ঠানের। ইতিমধ্যেই ১১১টাকায় জনতা শাড়ি বাজারে এনেছে তন্তুজ (Tantuja)। প্রতিযোগিতায় এবার জনতা শাড়ি আসছে খাদি (Khadi)। তবে, তাদের দাম এখনও জানা যায়নি। ২১ তারিখ সেই শাড়ি আসবে বাজারে।

কলকাতার (Kolkata) খাদি ভবনে পুজোর আগেই জনতা শাড়ির উদ্বোধন হবে। ২১তারিখ ঠিক হবে এই শাড়ির দাম। সমস্ত সুতির শাড়িকে পাল্লা দিয়ে গুণমানে ভালো মাত্র ১১১ টাকায় জনতা শাড়ি পাওয়া যাচ্ছে সমস্ত তন্তজ দোকানে। তবে, খাদির ‘জনতা’ শাড়ি বাজারে প্রথম।

তন্তুজের জনতা শাড়ি বাংলা-সহ সারা দেশের খেটে-খাওয়া মানুষের কাছে যথেষ্ট পছন্দের। তাতে পাল্লা দিতে নদিয়ার (Nadia) ফুলিয়া ও বর্ধমানের (Bardhawan) হাজার হাজার তাঁতিদের নিয়ে ব্যশবসায় নামছে খাদি। পুজোর আগেই দিল্লির প্রগতি ময়দানের মেলায় খাদি ও তন্তুজর জনতা শাড়ি পাওয়া যাবে। রাজ্যের ক্ষুদ্র ও মাঝারি কুটির শিল্পের মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহা বলেন, খাদি জনতা শাড়ি নিয়ে বড়ো ব্য্বসায় নামছে। রিবেট দেওয়া হবে। তবে দামটা এখনো ঠিক হয়নি। একশো এগারো টাকার তন্তুজর জনতা শাড়ি তন্তুজ কেন্দ্রে পাওয়া যায়। বস্ত্রশিল্পে তন্তুজ, মঞ্জুষা বা খাদি যে বিশ্ববাংলার মানকে আরও বাড়িয়ে তুলবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না বলে মনে করেন মন্ত্রী।

Previous articleসব স্কুলে কেন নীল-সাদা পোশাক? বিধানসভায় ব্রাত্যর হাতিয়ার বিজেপিরই অসম ও ত্রিপুরা