উত্তর প্রদেশ: ধর্ম পরিবর্তনে নারাজ তরুণীকে পাঁচতলা থেকে ধাক্কা

প্রেমের জালে ফাঁসিয়ে তরুণীকে ধর্ম পরিবর্তনের(religious convert) চেষ্টা। তাতে রাজি না হওয়ায় খুনের ঘটনা ঘটলো উত্তরপ্রদেশে। বুধবার পুলিশের(Police) তরফে জানানো হয়েছে নিহত ১৯ বছরের তরুণীকে পাঁচতলা থেকে ধাক্কা দিয়ে ঠেলে ফেলে দেওয়া হয়েছে। ঘটনায় মূল অভিযুক্ত মহম্মদ সুফিয়া নিহতের প্রতিবেশী বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার রাতে ঘটনাটি ঘটে দুবাগ্গা পুলিশ স্টেশন চত্বরে। যুগ্ম পুলিশ কমিশনার পীযূষ মর্দিয়া সাংবাদিক বৈঠকে জানান, “নিহত বালিকার পরিবারের অভিযোগ তাদের মেয়েকে জোর করে সম্পর্ক তৈরী ও ইসলামে ধর্মান্তকরণের চেষ্টা করেছিল অভিযুক্ত সুফিয়া। কিন্তু বিষয়টিতে তীব্র আপত্তি ছিল মেয়েটির পরিবারের।”

পুলিশ সূত্রে খবর, মেয়েটিকে একটি মোবাইল ফোন দিয়েছিল সুফিয়া। কিন্তু বিষয়টি জানা মাত্রই মেয়েটির পরিবার সরাসরি কথা বলার জন্য অভিযুক্তের বাড়ি যায়। দুই পরিবারের মধ্যে কথা কাটাকাটির সময়েই মেয়েটিকে নিয়ে বাড়ির পাঁচতলায় নিয়ে চলে যায় সুফিয়া এবং সেখান থেকে তাকে ধাক্কা দিয়ে নিচে ফেলে দেওয়া হয়।

পুলিশের সূত্রে জানানো হয়েছে দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিলেন অভিযুক্ত। অবশেষে বুধবার ৫ সদস্যের একটি দল তাকে গ্রেফতার করেছে বলে জানিয়েছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। তার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় খুনের মামলা জারি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন- অবশেষে খোঁজ মিলল আসল সুজনের, ফোনের ‘গুঁতোয়’ বিরক্ত টেট উত্তীর্ণ

Previous articleঅবশেষে খোঁজ মিলল আসল সুজনের, ফোনের ‘গুঁতোয়’ বিরক্ত টেট উত্তীর্ণ