লা গণেশনকে সরিয়ে এবার বাংলার রাজ্যপাল হতে চলেছেন মোদি ঘনিষ্ঠ সি ভি আনন্দ বোস

সি ভি আনন্দ বোস মোদি ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত। ফলে জগদীপ ধনকড়ের সময়ে রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত চরম আকার নিয়েছিল। ধনকড়ের মদতে রাজভবন কার্যত বিজেপির পার্টি অফিসে পরিণত হয়েছিল বলে অভিযোগ শাসক দল তৃণমূলের

মেয়াদ শেষ হচ্ছে লা গণেশনের। তাঁর মেয়াদ আর বাড়াতেও চায় না কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদি সরকার। তাই রাজভবনে আসছেন নতুন অতিথি। এবার পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী রাজ্যপাল পদে বসতে চলেছেন ডা সি ভি আনন্দ বোস। আজ, বৃহস্পতিবার এই মর্মে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে রাষ্ট্রপতি ভবন।

১৯৭৭ সালের আইএএস সি ভি আনন্দ বোস বর্তমানে মেঘালয় সরকারে উপদেষ্টা পদে রয়েছেন। সি ভি আনন্দ বোস মোদি ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত। ফলে জগদীপ ধনকড়ের সময়ে রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাত চরম আকার নিয়েছিল। ধনকড়ের মদতে রাজভবন কার্যত বিজেপির পার্টি অফিসে পরিণত হয়েছিল বলে অভিযোগ শাসক দল তৃণমূলের। তিনি কার্যত রাজ্য বিজেপির অভিভাবকের ভূমিকা পালন করতেন বলেও অভিযোগ। তার পুরস্কারও পেয়েছিলেন ধনকড়। তাঁকে উপরাষ্ট্রপতি করে কেন্দ্রে মোদি সরকার।

এদিকে ধনকড় উপরাষ্ট্রপতি হতেই তাঁর জায়গায় অস্থায়ী রাজ্যপালের দায়িত্বে আসেন লা গণেশন। ধনকড়ের উত্তরসূরির সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সম্পর্ক বেশ মধুর বলেই জানা যায়। এখন আবার নতুন করে মোদি ঘনিষ্ঠ রাজ্যপাল এলে ধনকড় আমলের সংঘাত ফিরবে কিনা তা নিয়ে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

অত্যন্ত বৈচিত্রময় কেরিয়ার সি ভি আনন্দ বোসের। কেরালার কোট্টায়ামের বাসিন্দা তাঁর কেরিয়ার শুরু করেন জেলা শাসক হিসেবে। ১৯৭৭ সালের এই আইএএস জেলা শাসক থেকে চিফ সেক্রেটারি হন। একসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের দায়িত্বও সামলেছেন। এছাড়াও কেন্দ্রীয় সরকারের একাধিক মন্ত্রকের দায়িত্বে তিনি ছিলেন।

আরও পড়ুন:বিধানসভা ভোটের আগে মেঘালয়ের তুরাতে তৃণমূলের কার্যালয় উদ্বোধন অভিষেকের

 

Previous articleবিধানসভা ভোটের আগে মেঘালয়ের তুরাতে তৃণমূলের কার্যালয় উদ্বোধন অভিষেকের