ক্যানিংয়ে নাবালিকার বিয়ে আটকাতে গিয়ে জখম পুলিশ, গ্রেফতার ১

নাবালিকার বিয়ে আটকাতে গিয়ে এলাকাবাসীর ক্ষোভের শিকার হতে হল পুলিশকে। নাবালিকার প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে ইট দিয়ে মেরে মাথা ফাটানোর অভিযোগ উঠেছে। ঘটনায় গুরুতর জখম হয়েছে ক্যানিং থানার এক এসআই ও দু’জন সিভিক ভলান্টিয়ার কর্মী।তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই ঘটনায় অভিযুক্ত একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আরও পড়ুনঃপঞ্চায়েত নির্বাচনে মিঠুনই ভরসা বিজেপির! ফের শহরে বিজেপি নেতা

সোমবার রাতে ক্যানিং থানার অন্তর্গত গোপালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সর্দার পাড়া এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ সূত্রের খবর, ক্যানিংয়ের সর্দার পাড়ার বাসিন্দা সুব্রত সর্দার তাঁর সতেরো বছরের ছেলের বিয়ের আয়োজন করেছিলেন নিকারীঘাটা পঞ্চায়েতের পূর্বহাতামারীর এক নাবালিকার সঙ্গে। গতকাল রাতে বেশ জাঁকজমকের সঙ্গেই বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। গ্রামে নাবালিকা বিয়ে (Child Marriage) হচ্ছে খবর পেয়ে রাতেই বিয়েবাড়িতে চলে আসে পুলিশ।

পুলিশের অভিযোগ, তাঁদের দেখতেই  সর্দারের বাড়ির লোকজন লাঠি নিয়ে তেড়ে যায়। পুলিশের সঙ্গে হাতাহাতি শুরু হয়ে যায় বরের বাড়ির লোকজনের। ঘটনায় এসআই ও দুই সিভিক ভলান্টিয়ারকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়। রক্তাক্ত অবস্থায় তিনজনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

ইতিমধ্যেই ঘটনায় অভিযুক্ত সঞ্জয় মন্ডল নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে ক্যানিং থানার পুলিশ।বাকি অভিযুক্তরা পলাতক। তাদের খোঁজে এলাকায় শুরু হয়েছে তল্লাশি ।

Previous articleশিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতির মামলা: বেসরকারি ডিএলএড কলেজগুলিকে তলব শুরু ইডি-র