অপর্ণাদের পাশে নাসির-রোমিলা

অপর্ণা সেন, রামচন্দ্র গুহ সহ বিশিষ্টদের পাশে দাঁড়িয়ে সরব এবার নাসিরুদ্দিন, রোমিলা থাপারের মতো ব্যক্তিত্বরা। ফলে প্রতিবাদের তালিকা ক্রমশ দীর্ঘ হচ্ছে। এবার আর একটি চিঠিতে এই বিশিষ্টজনেরা প্রশ্ন রেখেছেন প্রধানমন্ত্রীর কাছে। খোলা চিঠিতে প্রশ্ন করা হয়েছে, প্রতিবাদ করলেই কেন দেশদ্রোহীতার তকমা দেওয়া হবে?

মোদীকে চিঠি লেখায় ৪৯জন বুদ্ধিজীবীর বিরুদ্ধে যে এফআইআর হয়েছে, তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছেন ১৮০ জনেরও বেশি সাংস্কৃতিক কর্মী। তালিকায় রয়েছেন রয়েছেন নাসিরুদ্দিন শাহ, সিনেমাটোগ্রাফার আনন্দ প্রধান, ঐতিহাসিক রোমিলা থাপার, সমাজকর্মী হর্ষ মান্দারসহ বিশিষ্টিরা। গণপিটুনি এবং তার জেরে খুনের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে গত জুলাইতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখেছিলেন চলচ্চিত্র পরিচালক অপর্ণা সেন, আদুর গোপালকৃষ্ণণ, লেখক রামচন্দ্র গুহ প্রমুখরা। তাঁদের সেই চিঠিকে দেশদ্রোহিতা বলে অভিযোগ করে গত সপ্তাহে বিহারের মজফফরপুরে একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। এই এফআইআর রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলেই বিশ্বাস প্রতিবাদীদের। বিরুদ্ধ কিণ্ঠ বন্ধ করে গণতন্ত্রের সমাধি রচনা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ।