‘ভুঁইফোঁড় স্বঘোষিত নেতারা কংগ্রেসের সর্বনাশ করছে’, তোপ দাগলেন মান্নান

“এআইসিসি এবং প্রদেশস্তরে এমন নেতারা কংগ্রেসের নেতৃত্ব দিচ্ছেন যাঁদের কোনও যোগ্যতাই নেই। এলাকায় কেউ তাদের চেনে না৷ পার্টির কেউ তাদের চেনে না৷
এই নেতারা শুধুমাত্র দিল্লিতে লবি করে কংগ্রেসে মাতব্বরি করছেন।”

অস্তিত্বটুকু টিঁকিয়ে রাখতেই যখন কংগ্রেস দল বেহাল, তখনই দলের নেতাদের যোগ্যতা নিয়ে এভাবেই বিস্ফোরন ঘটালেন রাজ্যের বর্ষীয়ান নেতা তথা বিধানসভার বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান।

AICC এবং PCC- পদাধিকারীদের যোগ্যতা এবং প্রাসঙ্গিকতা নিয়েই প্রশ্ন তুলে মান্নান সাহেব বলেছেন, “সোনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধী, মনমোহন সিং, প্রিয়াংকা গান্ধীর মতো জনপ্রিয় নেতা থাকা সত্ত্বেও এই দলে স্বজনপোষণের কারণে অনেক অযোগ্য ব্যক্তি কংগ্রেসের কেন্দ্রীয় এবং প্রদেশ পর্যায়ের নেতা হয়ে উঠেছেন। তাঁরাই মাতব্বরি করছেন। এরা অযোগ্য, অদক্ষ বলেই দল ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে, উঠে যেতে বসেছে৷”

লোকসভা নির্বাচনের ক্ষত মেরামত এখনও হয়নি৷ আদৌ হবে কি’না ঠিক নেই৷ ওদিকে, দিল্লিতে শোচনীয় ভরাডুবি হয়েছে কংগ্রেসের। রাজধানীতে আদৌ এই দলটি আছে কি’না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে৷ এদিকে রাজ্য রাজনীতিতে এই দলের প্রাসঙ্গিকতা কার্যত প্রশ্নচিহ্নের মুখে৷ এই সময়ই কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য নেতৃত্বের একাংশকে কাঠগড়ায় তুললেন আবদুল মান্নান৷ রাজনৈতিক মহলের ধারনা, মান্নান যতখানি না দিল্লির সমালোচনা করেছেন, তার থেকে শতগুনে বেশি তোপ দেগেছেন প্রদেশ কংগ্রেসের বর্তমান পদাধিকারীদের উদ্দেশ্যে ৷ প্রসঙ্গত, এই মুহুর্তে প্রদেশের সভাপতি সোমেন মিত্র৷

প্রদেশ কংগ্রেসের শাসক গোষ্ঠীকে তাক করে
বোমা ফাটিয়ে আবদুল মান্নানের মতো প্রবীণ নেতা বলেছেন, “এমন কিছু নেতা রাজ্য পর্যায়ে কংগ্রেসের নেতৃত্ব দিচ্ছেন যাঁদের কোনও যোগ্যতাই নেই। এলাকার কেউ চেনে না, পার্টির কেউ চেনে না৷ এরা শুধুমাত্র দিল্লির নেতাদের স্তাবকতা করে দলে মাতব্বরি করছেন।
এর ফলে প্রকৃত সক্রিয় কংগ্রেস নেতা ও কর্মীরা হতাশ পড়ে পড়ছেন”৷
মান্নানের সাফ কথা,
“ভুঁইফোঁড় তথাকথিত স্বঘোষিত নেতারা কংগ্রেসের সর্বনাশ করছে”৷ আবদুল মান্নানের মতে, দলের এই পরিস্থিতি বাস্তব দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে বিশ্লেষণের প্রয়োজন৷