*পরিকল্পনামাফিক আটকানো হয়েছে রথযাত্রা, অভিযোগ পুরীর শঙ্করাচার্যের*

পুরীর রথযাত্রা বন্ধ করা হয়েছে শীর্ষ আদালতের এক নির্দেশে৷ ওদিকে, ওই নির্দেশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টেই পেশ করা হয়েছে একাধিক হলফনামা। রথযাত্রা মঙ্গলবার, তাই সেইসব মামলার শুনানি আজ, সোমবার সুপ্রিম কোর্টে হওয়ার কথা।

এদিকে, পুরীর রথযাত্রা আটকে দেওয়ার ঘটনাকে ‘সুপরিকল্পিত’, বলে গুরুতর অভিযোগ তুলেছেন পুরীর শঙ্করাচার্য স্বামী নিশ্চলানন্দ সরস্বতী।

পুরীর শঙ্করাচার্য বলেছেন, “রথযাত্রা বাতিলের সিদ্ধান্ত সঠিক নয়। জগন্নাথদেবকে রথে চড়ার অনুমতি অন্তত দিতে পারত সুপ্রিম কোর্ট। ভক্তদের জমায়েত বন্ধ করা প্রয়োজন। সীমিত ভক্ত ও পুলিশ নিয়ে এই উৎসব করা যেত। উৎসবের লাইভ টেলিকাস্টও করা যেতে পারতো। কোনও পরিকল্পনাতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে”৷

প্রধান বিচারপতি এস এ বোবড়ের নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির বেঞ্চ গত বৃহস্পতিবার পুরীর রথযাত্রার উপর স্থগিতাদেশ দেন। ওডিশা মন্ত্রিসভাও আদালতের নির্দেশ মেনে নিয়েছে৷ তবে একাধিক ধর্মীয় সংগঠন রথযাত্রা বন্ধ করা নিয়ে আপত্তি তোলে।
এদিকে জানা গিয়েছে, রথযাত্রায় স্থগিতাদেশ পুনর্বিবেচনার আর্জি নিয়ে আদালতে গিয়েছেন বিজেপি নেতা সম্বিত পাত্রও। পুরীর রাজা গজপতি দিব্যসিং দেব রথযাত্রা নিয়ে কথা বলেছেন ওডিশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়কের সঙ্গে। রাজার আবেদন, মুখ্যমন্ত্রী যেন নিজেই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়ে রথযাত্রা স্থগিতের নির্দেশ পুনর্বিবেচনার আর্জি জানান।