উমার হো গ্যায়া কুছ তো শরম কারো, রাজ্যপালকে কটাক্ষ কল্যাণের

রাজ্যপালের টুইটের কড়া জবাব সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের। বললেন, “গভর্নর আপকা উমার হো গ্যায়া কুছ তো শরম কারো।” রবিবার রাজ্য সরকারকে কোণঠাসা করে টুইট করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। তার জবাব দিয়েছেন শ্রীরামপুরের তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ। এদিন কল্যাণ বন্দোপাধ্যায় আরও বলেন, “রাজ্যপাল সাংবিধানিক অধিকারগুলো পড়াশোনা করে জানুন। বিজেপির সদর দফতরের কর্মচারীতে পরিণত হয়েছেন।”

নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে কী লিখেছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়? নিজের টুইটে রাজ্য সরকারকে কোণঠাসা করার পাশাপাশি একাধিক প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন তিনি। একইসঙ্গে রাজ্যপালের অধিকার ও কর্তব্য সম্পর্কে রাজ্য সরকারের সামনে একাধিক বিষয় তুলে ধরেছেন তিনি।

এদিন রাজ্য সরকারকে উদ্দেশ করে টুইটারে রাজ্যপাল লেখেন, “রাজনৈতিক হিংসা,শিল্প সম্মেলনে দুর্নীতি,রেশন ব্যবস্থা, আমফানের ত্রাণ বিলিতে অনিয়ম সহ বিবিধ বিষয়ে রিপোর্ট চাওয়া রাজ্যপালের অধিকার ও কর্তব্য। সেই তথ্য পাওয়া যায় না। শাসক দলের অবস্থান হল, রাজ্যপাল রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট। আমার প্রশ্ন, এটা কি আইনের শাসন বা গণতন্ত্র। তথ্য দেওয়া হয় না কেন? এত লুকানোর কি আছে? সরকার তার ব্যাখ্যা দিক। যাঁরা তথ্য দিচ্ছেন না, স্বচ্ছতা ও দায়িত্বের স্বার্থে তাঁদের চিহ্নিত করুন। এই অস্পষ্টতা দুর্নীতির জন্ম দেবে। বাক্সের ভিতর কঙ্কালের সংখ্যা আরও বাড়বে।”