১০১ বছরের ঐতিহ্য ভাঙল বাগবাজার গৌড়ীয় মিশন, রাস্তাজুড়ে হলো না নগর সংকীর্তন

করোনা মহামারি আবহের মধ্যেই এবছর দু’দিন ধরে পড়েছে জন্মাষ্টমী পুজো। আজ, বুধবার সকালে উত্তর কলকাতার ঐতিহ্যবাহী বাগবাজার গৌড়ীয় মঠ ও মিশনের পক্ষ থেকে পথে নেমে নাম-সংকীর্তন করেন মঠ ও মিশনের সভাপতি ভক্তি সুন্দর সন্ন্যাসী মহারাজ-সহ অন্য সেবাইতরা।

এবারে ১০১ বছরে পদার্পণ করেছে মঠ ও মিশনের এই জন্মাষ্টমী পূজা। গতকাল, মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটা থেকে শুরু হয়ে যায় পূজা। সেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী শশী পাঁজাও। প্রতিবছর এখানে জন্মাষ্টমী উৎসব পালন করা হয় মহাসমারোহে। তবে এ বছর কঠিন পরিস্থিতির সৃষ্টি হওয়ায় সেইভাবে জন্মাষ্টমী উৎসব পালন না করা গেলেও সমস্ত নিয়ম-রীতি মেনে এখানে জন্মাষ্টমী পূজা করা হয়।

মঠ ও মিশনের মধ্যে যারা উপস্থিত ছিলেন, সকলেই নিজেদের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অনুষ্ঠানে যোগ দেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রত্যেকের মুখে ছিল মাস্ক। প্রতিবছর নগর সংকীর্তন করা হয়। তবে এ বছর আর নগর সংকীর্তন করা হয়নি বলে জানিয়েছেন মঠ ও মিশনের সভাপতি ভক্তি সুন্দর সন্ন্যাসী মহারাজ।

বাগবাজার থেকে শুরু করে এমজি রোড পর্যন্ত রাস্তাজুড়ে এই নগর সংকীর্তন হয়ে থাকে। তবে এবছর তা সম্ভব না হওয়ায় শুধুমাত্র বাগবাজারে সামান্য কিছুটা অংশ জুড়ে সকালবেলা নাম সংকীর্তন করা।

প্রতি বছর এই নগর সংকীর্তনে উপস্থিত থাকেন প্রায় ৫০০ ভক্ত। তবে এ বছর মাত্র ৪০ থেকে ৪৫ জন ভক্তের সমাগম হয়েছিল। তবে পুলিশ প্রশাসনের সহায়তায় সবকিছুই ভালোয় ভালোয় মিটেছে বলে জানিয়েছেন ভক্তি মহারাজ।