ভয়াবহ আগুন, লেলিহান শিখায় যেন আগ্নেয়গিরি সৌদির আমাদ পাহাড়

অস্ট্রেলিয়ার পর এবার ভয়াবহ আগুন সৌদি আরবের আমাদ পাহাড়ে।

শুকনো গাছপালায় ঘষা লেগে পাহাড়ের জঙ্গলে আগুন ধরে যায় বুধবার সকালে। শনিবার হতে চললেও, সেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আসেনি। দক্ষিণ তইফের আমাদ পাহাড়ের বিস্তীর্ণ বনভূমি ইতিমধ্যে পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছে। বিঘার পর বিঘা জমির ফসল নষ্ট হয়েছে।

সমস্ত শক্তি কাজে লাগিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে সৌদি আরবের সিভিল ডিফেন্স টিম। দিনরাত এক করে কাজ করছেন দমকলকর্মীরা। কিন্তু গোটা পাহাড়জুড়ে যেভাবে আগুন জ্বলছে তা কিছুতেই বাগে আনা সম্ভব হচ্ছে না।

আরও পড়ুনপ্রবল বৃষ্টিতে ভাসবে দক্ষিণবঙ্গ, বেশকিছু জেলায় জারি সর্তকতা

ভয়াবহ আগুনের ছবি ইতিমধ্যেই ভাইরাল। সৌদি সিভিল ডিফেন্সের তরফে জানানো হয়েছে, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চলছে। তবে কারও মৃত্যু বা অগ্নিদগ্ধ হওয়ার খবর এখনও মেলেনি।ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বান্দর আল তাহকাফির কথায়, “যেদিকেই তাকাচ্ছি আগুনের লেলিহান শিখা। গরম বাতাসে মনে হচ্ছে গা পুড়িয়ে দেবে। ঘন জঙ্গল দাউদাউ করে জ্বলছে।এ এক অদ্ভূত দৃশ্য।”

স্বেচ্ছাসেবক দমকলকর্মী মসজিদ আল তাহকফি জানান, প্রচণ্ড আগুনে বড় বড় গাছপালা ছাই হয়ে গিয়েছে। যতই চেষ্টা করা হচ্ছে আগুন ততই বেড়ে যাচ্ছে।
দক্ষিণ তইফের আমাদ পাহাড়টি সমুদ্রতল থেকে দু’হাজার ফিট উচ্চতায় অবস্থিত। পাহাড়টি বিখ্যাত তার জুনিপার গাছের জন্য। এই জঙ্গলে বাস অসংখ্য  ছোট বড় প্রাণীর। সবুজ এই পাহাড় পর্যটকদের কাছেও জনপ্রিয়। এখানেই রয়েছে হাথওয়া পার্ক, আল বড়দার মতো পর্যটন আকর্ষণ। আগুন এখনও নিয়ন্ত্রণে না আসায় বহু প্রাণীর মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে। জঙ্গলের পাশাপাশি প্রচুর কৃষি জমিও ক্ষতিগ্রস্ত।
কিছুদিন আগেই অস্ট্রেলিয়ার ভয়াবহ দাবানলে লাখ লাখ প্রাণীর মৃত্যুর খবর মিলেছিল। ফের সৌদি আরবের এই দাবানলে পরিবেশ ও বন্যপ্রাণের যথেষ্ট ক্ষতি হবে বলে আশঙ্কা করছেন পরিবেশ প্রেমীরা।