নস্টালজিয়া জাগিয়ে ফিরছে দোতলা বাস, উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী

১৫ বছর পরে নস্টালজিয়া জাগিয়ে মহানগরীর বুকে ফিরছে দোতলা বাস। মঙ্গলবার, নবান্ন থেকে দুটি ডাবল ডেকার বাসের উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সরকারি ভাবে ২০০৫ সাল থেকে দোতলা বাস তুলে দেওয়া হয়েছিল। তবে জনপরিবহণের জন্য নয়, দোতলা বাস ফিরছে পর্যটনের আকর্ষণ হিসেবে; সম্পূর্ণ নতুন চেহারায়।

খাতায়-খলমে তুলে দেওয়ার আগে থেকেই অবশ্য শহরের রাস্তায় ক্রমশ ফিকে হতে শুরু করেছিল দোতলা বাসগুলি। বাহে লড়ঝড়ে অবস্থা এবং শহরে ব্রিজ ও আন্ডারপাসের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে বেমানান হয়ে যায় ডবল ডেকার। কিন্তু লাল দোতলা বাসের নস্টালজিয়ায় ভুলতে পারেনি তিলোত্তমা। আজ যাঁরা করোনাকালে পুজোয় ঘরবন্দি, তাঁদের কারও শৈশব, কারও যৌবনের পুজোয় এই দোতলা বাস ছিল ঠাকুর দেখার সঙ্গী।

পুজোর আগে দোতলা বাস ঘিরে নানা আবেগ উস্কে দিয়েছে রাজ্য সরকার। তবে বাস কোথা থেকে ছাড়বে, কোথায় যাবে- সে সব সবিস্তারে এখনও জানানো হয়নি। পুজোয় পথে নামলে বাসের ভাড়া কত হবে? সে বিষয়ে পর্যটন উন্নয়ন কর্পোরেশন এখনও সিদ্ধান্ত নেয়নি বলে জানান কর্পোরেশনরে চেয়ারম্যান ও মন্ত্রী গৌতম দেব। তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রী উদ্বোধন করার পরে ভাড়া এবং কোথা থেকে বুকিং করতে হবে- সব তথ্য জানিয়ে দেওয়া হবে।

কিন্তু সেই বাঘ-মুখ আঁকা লোগো আর লাল রং নয়, দোতলা বাস ফিরছে নীল-সাদা রঙে, অত্যাধুনিক সাজে। জনপরিবহণ নয়, অনেকটা লন্ডন সিটি ট্যুরের আদলে কলকাতায় ঘোরার জন্য আসছে হুড খোলা দোতলা বাসও।
অত্যাধুনিক বাসগুলিতে থাকছে সিসিটিভি, প্যানিক বাটন, অটোম্যাটিক দরজা, ডেস্টিনেশন বোর্ড। পুরোনো দোতলা বাসে দু’টি দরজা থাকত- একটি নীচের এবং একটি উপরে ওঠার।
এই বাসে একটিই দরজা থাকবে। বাসের ভিতরে থাকছে ছাদে ওঠার সিঁড়ি।
মোট আসন ৫১টি, এর মধ্যে দোতলায় ১৭টি।
ভারত স্টেজ ফোর গোত্রের এই নতুন বাস নির্মাণ করেছে জামশেদপুরের সংস্থা বেবকো। দু’টি বাসের জন্য খরচ পড়েছে ৯০ লক্ষ টাকা।

বাস দুটি কিনেছিল পশ্চিবঙ্গ পরিবহণ নিগম। ঠিক ছিল পর্যটক টানতে নিউ টাউনে সেগুলি চলবে। বাসের ছাড়পত্র দিয়েছে সেন্ট্রাল ইনস্টিটিউট অফ রোড ট্রান্সপোর্ট।

সম্প্রতি নবান্ন জানায়, পরিবহণ নিগম নয়, পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন উন্নয়ন কর্পোরেশন এই বাস চালাবে। সেইমতো নিগমকে বলে দেওয়া হয় বাস পর্যটন উন্নয়ন কর্পোরেশনের হাতে তুলে দিতে। রক্ষণাবেক্ষণ তারাই করবে। শুধুমাত্র ড্রাইভার ও কন্ডাক্টার দেবে নিগম। সেই থেকে এক জোড়া দোতলা বাস সল্টলেকে পর্যটন উন্নয়ন নিগমের গ্যারাজে রয়েছে।

আরও পড়ুন-করোনা সতর্কতায় বার্তা: এবার ভার্চুয়ালি পুজো উদ্বোধন মুখ্যমন্ত্রীর