পর্যটন কেন্দ্রগুলিকে নতুন রূপ দিতে উদ্যোগ রাজ্যের

পর্যটন কেন্দ্রগুলিকে আকর্ষণীয় করে তুলতে এবার নয়া উদ্যোগ নিল রাজ্য সরকার। বন দফতরের ৩৪টি বাংলোকে বেসরকারি পেশাদার সংস্থার হাতে তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য। জানা গিয়েছে, গত ৫ অক্টোবর বন দফতরের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে এই উদ্যোগের পাশাপাশি স্থানীয় কর্মসংস্থানের উপর বিশেষ জোর দিচ্ছে রাজ্য সরকার।

রাজ্য সরকারের মূল উদ্দেশ্য পর্যটন আরও আকর্ষণীয় করে তোলা। পাশপাশি এই কাজের মাধ্যমে স্থানীয় কর্মসংস্থানের রাস্তা খুলে দিতে উদ্যোগ নিল রাজ্য। বন দফতর সূত্রে খবর, রাজ্যের বিভিন্ন অভয়ারণ্য এবং বনাঞ্চলকে ঘিরে বেশ কিছু আকর্ষণীয় বাংলো রয়েছে। কিন্তু রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে ওই সব বাংলোয় ক্রমশই পর্যটকের সংখ্যা কমছিল। এভাবে ক্ষতি হচ্ছিল পর্যটন শিল্পের। তাই এবার পেশাদার সংস্থার হাত ধরে হাল ফেরাতে তৎপর রাজ্য বন দফতর।

প্রাথমিক ভাবে ঠিক হয়েছে, দার্জিলিঙের মানেভঞ্জন ট্রেকারস হাট, সামশিঙের মৌচাকী ক্যাম্প, জলপাইগুড়ির নেওড়া ক্যাম্প, জলপাইগুড়ি-লাটাগুড়ির মূর্তি টেন্টস, বাঁকুড়ার ইকো ট্যুরিজম সেন্টার, পুরুলিয়ার মাঠা ট্রি হাউস-সহ ৩৪টি বন বাংলো বেসরকারি সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া হবে। ওই বাংলোতে একইসঙ্গে বিভিন্ন অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টসের ব্যবস্থা করতে পারবে। বন দফতরের এক কর্তার জানিয়েছেন, ‘‘রাজ্য সরকার পর্যটন শিল্পকে আরও অত্যাধুনিক করে তুলতে চায়। এই কাজে স্থানীয়দের কর্মসংস্থানের উপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।’’ এইভাবে স্থানীয় অর্থনীতি চাঙ্গা হবে বলে আশাবাদী তিনি।

আরও পড়ুন:গোন্দলপাড়া জুট মিল খুলছে: সুখবর শোনালেন লকেট