সীমান্তে স্থিতাবস্থা ফেরাতে দ্বিপাক্ষিক চুক্তির প্রতি চিনকে শ্রদ্ধাশীল হতে হবে : এস জয়শঙ্কর

ভারত-চিন সম্পর্ক গভীর সঙ্কটে। পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় সেনা সংঘর্ষের পরিপ্রেক্ষিতে ভারত-চিন কূটনৈতিক ও সামরিক সম্পর্ক উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। এমনই মন্তব্য করলেন বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। তাঁর সাফ কথা, প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় স্থিতাবস্থা বদল করার বিষয়টি একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয়।
তিনি জানিয়েছেন, চিনকে সীমান্ত বিষয়ক দ্বিপাক্ষিক চুক্তির প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। চিনের দুমুখো নীতি ত্যাগ করতে হবে। তবেই স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসার সম্ভাবনা। অল ইন্ডিয়া রেডিওতে সর্দার পটেল স্মারক বক্তৃতায় বিদেশমন্ত্রী এই কথা বলেন।

আরও পড়ুন-সাতপাকে বাঁধা পড়লেন কাজল-গৌতম, পোস্ট করলেন হলদি ও মেহেন্দির ছবি
এদিন তিনি বলেছেন ‘স্বাভাবিক অবস্থা ফেরাতে দু’দেশের মধ্যে হওয়া চুক্তির প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকতে হবে। তিন দশক ধরে ভারত-চিনের সীমান্ত বিষয়ক চুক্তি নিয়ে কোনওরকম সমস্যা হয়নি। সীমান্তে শান্তি বজায় ছিল। কিন্তু অতিমারি পরিস্থিতিতে ভারত-চিন সম্পর্কে গভীর সঙ্কট তৈরি হয়েছে।
বিদেশমন্ত্রী আরও বলেছেন, ‘জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে সীমান্তে পরিকাঠামোর উন্নতিতে জোর দেওয়া হচ্ছে। গত ৬ বছর ধরেই জাতীয় নিরাপত্তাকে অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে। রাশিয়া, জাপান ছাড়াও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভারতের সম্পর্কের উন্নতি হয়েছে। আর্থিক ও প্রযুক্তি বিষয়ক চুক্তি এই সম্পর্কের ভিত্তিকে শক্তিশালী করে তুলেছে। ইউরোপের দেশগুলির সঙ্গেও ভারতের কূটনৈতিক সম্পর্কের উন্নতি হয়েছে।’
এমনকি এই সম্পর্কের সঙ্কটের প্রভাব পড়েছে বাণিজ্যিক ক্ষেত্রেও। দেশজুড়ে চিনা পণ্য বয়কটের ডাক দেওয়া হয়েছে। শতাধিক চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।
বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলে রীতিমতো কোণঠাসা চিন। এই পরিস্থিতিতে কঠোর অবস্থান নিচ্ছে ভারতও। এই বিষয়ে জাতীয় নিরাপত্তার সঙ্গে কোনওরকম আপোস করা হবে না বলে স্পষ্ট জানিয়েছেন বিদেশমন্ত্রী।