সংখ্যা কমিয়ে ১০১টি ট্রেন চলবে হাওড়া শাখায়, একনজরে সূচি

সরকারের সঙ্গে দফায় দফায় রেলের বৈঠকের পর ঠিক হয়েছে বুধবার থেকে রাজ্যে চালু হচ্ছে লোকাল ট্রেন পরিষেবা। হাওড়া ডিভিশনে চলবে ১০১টি লোকাল ট্রেন। সূত্রে খবর, মোট ৯টি শাখায় রেল চলাচল করবে। আগে ৪৩৮ লোকাল ট্রেন চলাচল করত৷ এখন সেটা কমিয়ে ১০১টি ট্রেন চালানো হবে। ধাপে ধাপে সেই সংখ্যা বৃদ্ধি করা হবে বলে রেল সূত্রে জানানো হয়েছে।

যে সব শাখায় ট্রেন চলাচল করবে সেগুলি হল:
হাওড়া-বর্ধমান- ৮৩টির বদলে এখন চলবে ২৬টি
হাওড়া থেকে কাটোটা ১৮টির বদলে এখন চলবে ৮টি
ব্যান্ডেল থেকে কাটোয়া ১৮টির জায়গায় এখন চলবে ৮টি
হাওড়া থেকে গোঘাট ১০টির বদলে চলবে ৬টি ট্রেন
হাওড়া থেকে তারকেশ্বর ৪৩টির বদলে এখন ১৩টি ট্রেন চলবে
হাওড়া থেকে বর্ধমান মেন লাইনে ৪৬টি ট্রেন চলে, এখন চলবে ১২টি ট্রেন
হাওড়া থেকে বর্ধমান কর্ড লাইনে ৪৮টির বদলে ১৪টি ট্রেন চলবে
বর্ধমান থেকে কাটোয়া শাখায় ট্রেন চলে ১২টি। এখন চলবে ৪টি। বর্ধমান থেকে নৈহাটি ট্রেন চলে ৩৮টি, এখন ট্রেন চলবে ১০টি।

সময় সারণী আছে তার পরিপ্রেক্ষিতে জানা যাচ্ছে হাওড়া-ব্যান্ডেল-হাওড়া শাখায় হাওড়া থেকে ট্রেন মিলবে ভোর ৫টা১৪ থেকে রাত ১১টা১৫ অবধি।
ব্যান্ডেল থেকে মিলবে ভোর ৩টে০৭ থেকে সন্ধে ৭টা৩০ অবধি।
হাওড়া-বর্ধমান-হাওড়া মেন শাখায় হাওড়া থেকে ট্রেন মিলবে সকাল ৬টা২০ থেকে রাত ১০টা১০ অবধি।
বর্ধমান থেকে মিলবে ভোর ৩টে০৫ থেকে সন্ধে ৭টা৫৫ অবধি।
কর্ড শাখায়, হাওড়া থেকে ছাড়বে প্রথম ট্রেন সকাল ৬টা১০, শেষ ট্রেন ১০টা১০ মিনিটে।
বর্ধমান থেকে ছাড়বে প্রথম ট্রেন ভোর ৩টে সময়। সন্ধেয় ছাড়বে ৭টা২০ মিনিটে।
হাওড়া থেকে তারকেশ্বর ট্রেন মিলবে হাওড়ায় ভোর ৬টা৩২ মিনিটে। শেষ ট্রেন রাত ১০টা০৫ মিনিটে।
তারকেশ্বর থেকে মিলবে ভোর ৩টে৫০ থেকে সন্ধে ১৮টা১০ অবধি।
নৈহাটি-বর্ধমান শাখায় নৈহাটি থেকে প্রথম ট্রেন মিলবে সকাল ৬টা১৮ মিনিটে। শেষ ট্রেন ১৯টা৫০ মিনিটে।
বর্ধমান থেকে প্রথম ট্রেন সকাল মিলবে ৫টা৩২ মিনিটে। শেষ ট্রেন ১৯টা২০ মিনিটে৷
হাওড়া-কাটোয়া শাখায়, হাওড়া থেকে প্রথম ট্রেন সকাল ৮টায়। শেষ ট্রেন ১৯টা২৫ মিনিটে।
কাটোয়া থেকে প্রথম ট্রেন ৩টে৪৫ মিনিটে। শেষ ট্রেন ১৫টা৩০ মিনিটে।
ব্যান্ডেল-কাটোয়া শাখায় ব্যান্ডেল থেকে প্রথম ট্রেন সকাল ৮টা১০ মিনিটে। শেষ ট্রেন ১৬টা৩০ মিনিটে।
কাটোয়ায় প্রথম ট্রেন সকাল ৮টা৪৫ মিনিটে। শেষ ট্রেন ১৯টা৫০ মিনিটে।

আপাতত এই সব শাখায় ট্রেনের সময় সারণী তৈরি করা হচ্ছে। তবে যে সব শাখায় ট্রেন চলবে না সেগুলি হল শেওড়াফুলি, শ্রীরামপুর, হরিপাল, বারুইপুর, পান্ডুয়া, মেমারি, সিঙ্গুর। রেল সূত্রে খবর, পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে দ্রুত ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানো হবে।

আরও পড়ুন:২৩১ দিন পর চলবে লোকাল ট্রেন, আটকে থাকা টাকা মিলবে মান্থলি পুনর্নবীকরণ করলেই

Previous article২৩১ দিন পর চলবে লোকাল ট্রেন, আটকে থাকা টাকা মিলবে মান্থলি পুনর্নবীকরণ করলেই
Next articleদলবিরোধী ও অসামাজিক কাজের অভিযোগ, শাস্তি সত্যরঞ্জনকে