ড্রাগ-কাণ্ডে ছেলে গ্রেফতার, সরানো হলো কেরল-সিপিএমের রাজ্য সম্পাদককে

ড্রাগ-কাণ্ডে ছেলে গ্রেফতার৷ ঘটনাচক্রে তারপরই কেরলের রাজ্য সম্পাদকের পদ থেকে সরে গেলেন বাবা কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণণ। দলের পলিটব্যুরো সদস্য কোডিয়ারি৷ নতুন সম্পাদকের পদে আসছেন LDF-এর আহ্বায়ক বিজয়রাঘবন। শুক্রবার কেরল সিপিএম জানিয়েছে, কোডিয়ারি নিজেই শারীরিক অসুস্থতার কারণে পদ থেকে সরতে চেয়েছিলেন৷ তা অনুমোদন করা হয়েছে৷

আরও পড়ুন : ‘বিচক্ষণ ও অনমনীয়’ তেজস্বী বনাম হঠাৎ ‘দার্শনিক’ নীতীশ, বিহার-যুদ্ধ এখনও জারি

সম্প্রতি বেঙ্গালুরুর ড্রাগ কারবারে জড়িত থাকার অভিযোগে ED গ্রেফতার করে বালাকৃষ্ণনের ছেলে বিনেশ কোডিয়ারিকে। বিনেশের বিরুদ্ধে বেআইনি টাকা লেনদেনের অভিযোগও আনা হয়েছে। রাজ্য সম্পাদকের পুত্রের গ্রেফতারির ঘটনায় দলের ভাবমূর্তিতে আঘাত লেগেছে বলে কথাও তুলেছে কেরল সিপিএমের একাংশ। মনে করা হচ্ছে, সেই কারনেই পদ ছাড়লেন কোডিয়ারি৷

যদিও কেরল সিপিএম জানিয়েছে, কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণণ ক্যান্সারে আক্রান্ত ৷ চিকিৎসা করাতে আমেরিকা যাওয়ার জন্য ছুটি চেয়েছিলেন। কিন্তু তাৎপর্যের বিষয় হলো, অস্থায়ী নয়, কোডিয়ারির জায়গায় রাজ্য সম্পাদকের পাকাপাকি
দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বিজয়রাঘবনকে। ফলে ধরেই নেওয়া হয়েছে সম্পাদকের ছেলের কারনে দলের ভাবমূর্তিতে যাতে কালি না লাগে, সেজন্যই সরানো হলো পলিটব্যুরো সদস্য কোডিয়ারিকে৷

আরও পড়ুন : মানুষ দ্বিতীয়বারও সুযোগ দেয়! বিহার নির্বাচন নিয়ে মুখ খুললেন সোনু সুদ

প্রসঙ্গত, এর আগে কোডিয়ারির আর এক ছেলে জড়িয়ে পড়েছিলেন ধর্ষণ মামলায়। সেবারও কোডিয়ারিকে সরানোর দাবি উঠেছিল। কোডিয়ারি বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছিলেন, আইন আইনের পথে চলবে। এবার ড্রাগ কারবারে যুক্ত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছেন তাঁর আর এক পুত্র। তার পরই শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে “ছুটিতে” গেলেন কেরল সিপিএমের অন্যতম শীর্ষ নেতা কোডিয়ারি বালাকৃষ্ণণ।