আদি-বিজেপির প্রবল বিক্ষোভে ভেস্তে গেলো নন্দীগ্রামের সভায় তৃণমূল বিধায়কের দলবদল

নন্দীগ্রামে শুক্রবার বিজেপির (bjp) সভায় তখন বক্তৃতা দিচ্ছেন সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাস বিজয়বর্গীয়( vijoybargiyo) বক্তব্য চলাকালীনই মঞ্চের ডানদিকে হঠাৎ বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়৷ বিজেপির কিছু কর্মীকে দেখা যায় উত্তেজিত হয়ে বিজয়বর্গীয়র দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা করছেন৷ এরা সকলেই খেজুরিতে বিজেপির দীর্ঘদিনের বিশ্বস্ত কর্মী৷ শোনা যায়, এরা উচ্চস্বরে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ঠ খেজুরির তৃণমূল বিধায়ক রনজিত মণ্ডলকে( ranjit mondal) কিছুতেই বিজেপিতে নেওয়া যাবে না৷ তাদের বক্তব্য, এই তৃণমূল বিধায়ক প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি করে দেওয়ার নামে এলাকার চাকরিপ্রার্থীদের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা নিয়েছেন৷ রনজিত মণ্ডলকাঁথিতে প্রাসাদের মতো বাড়ি, কলকাতায় বিলাসবহুল ফ্ল্যাটের মালিক হয়েছেন এই কয়েক বছরেই৷ আমফানের সময় তাঁকে এলাকায় দেখা যায়নি৷ সরকারের দেওয়া ত্রাণের টাকাও আত্মসাৎ করেছেন রনজিত মণ্ডল৷ চরম দুর্নীতিগ্রস্ত এই তৃণমূল বিধায়ককে দলে নেওয়া হলে খেজুরির মানুষ বিজেপির বিরুদ্ধে চলে যাবে৷

স্থানীয় বিজেপি নেতারা আদি-বিজেপি কর্মীদের আশ্বাস দেন, বিষয়টি রাজ্য নেতৃত্বকে জানানো হবে৷ তাদের আপত্তির মর্যাদা দেওয়া হবে৷ কারন উল্লেখ না করে সভায় হামলার অভিযোগ স্বীকার করেছেন শুভেন্দু অধিকারীও।

জানা গিয়েছে, এদিন তিনটি মঞ্চ তৈরি হয়েছিল। মূল মঞ্চের পাশে আরও দুটি মঞ্চ হয়েছিল। যারা বিজেপিতে যোগদান করবেন, তাঁদের থাকার কথা ছিল সেই মঞ্চে। তখনই খবর ছড়ায় তৃণমূল বিধায়ক রনজিত মণ্ডল এই সভাতেই যোগদান করবেন বিজেপিতে। তখনই তীব্র আপত্তি তোলেন বিজেপি কর্মীরা। সেই বিক্ষোভ দমাতে বেশ বেগ পেতে হয় মঞ্চে উপস্থিত বিজেপি নেতাদের। বিধায়ক রনজিত মণ্ডল ছাড়াও বিজেপি কর্মীরা সমান আপত্তি তোলেন খেজুরি ব্লক তৃণমূলের সভাপতির বিজেপি যোগদান নিয়েও৷ আদি বিজেপি কর্মীদের প্রবল আপত্তিতে এদিন কার্যত ভেস্তে যায় যোগদান কর্মসূচি৷

আরও পড়ুন:কে ছিল জুনিয়রের বাইকে? জানতে দিনভর মৃধা দম্পতির সামনে জেরা প্রিয়াঙ্কাকে

Advt