DYFI দফতরের সামনে ব্যাপক উত্তেজনা, এক পুলিশকর্মীকে বেধড়ক মারের অভিযোগ

সকাল থেকে প্রায় বিকেল গড়িয়ে গেলেও বাম (Left front) যুবনেতা (Youth Leader) মইদুল ইসলামের মৃতদেহের ময়নাতদন্ত (Postmortem) এখনও শুরুই হল না। দেরি হওয়ায় কলকাতা পুলিশ মর্গেই (Police Mourg) পৌঁছে গেলেন সিপিএম (CPM) নেতা সুজন চক্রবর্তী (Sujan Chakraborty) ও কংগ্রেস (Congress) নেতা আব্দুল মান্নান (Abdul Mannan)। ময়না তদন্তের জন্য দেহ বেলার দিকেই নিয়ে যাওয়া হয়েছে পুলিশ মর্গে। কিন্তু দেরি হচ্ছে দেখে পুলিশ মর্গের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন বাম কর্মীরা।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ময়নাতদন্তের পর DYFI-এর মৌলালির দফতরে নিয়ে যাওয়া হবে মইদুলের মরদেহ। সেখান থেকে বাম-কংগ্রেস যৌথভাবে একটি শোক ও প্রতিবাদ মিছিলও বের করবে। জানা যাচ্ছে, মিছিলে যোগ দিতে পারেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরিও।

Advt

আরও পড়ুন-যে কোনও মৃত্যুই দুঃখজনক, পরিবার চাইলে সাহায্য করা হবে: মুখ্যমন্ত্রী

এদিকে, বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে DYFI কর্মী সমর্থকরা মৌলালিতে ডিওয়াইএফআই-এর রাজ্য দফতরের সামনে জমায়েত হতে শুরু করে। বিকালের দিকে হঠাৎই উত্তেজিত কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে বচসা বেধে যায় পুলিশ কর্মীদের সঙ্গে। অভিযোগ, কোনও এক পুলিশ কর্মী কটূক্তি করেছে।

অন্যদিকে, এক পুলিশ কর্মীকে ফেলে তাঁকে বেধড়ক মারধর করা হয়েছে বলেও অভিযোগ উঠছে পুলিশের তরফে। এই বচসা থেকেই শুরু হয়ে যায় ধস্তাধস্তি। পরিস্থিতি বেশ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।