পামেলা কাণ্ডে নয়া মোড়: এতো কোকেন আগে মেলেনি, ভিন রাজ্যে তল্লাশি গোয়েন্দাদের

কোকেন কাণ্ডের (Drug Case) নেপথ্য বড়সড় রহস্যের গন্ধ পাচ্ছেন কলকাতা পুলিশের (Kolkata Police) গোয়েন্দারা। নিউ আলিপুর (New Aalipur) থেকে ধৃত বিজেপি (BJP) যুব মোর্চা নেত্রী পামেলা গোস্বামী (Pamela Goswami) বারবার দাবি করছেন, বিজেপির বাহুবলী নেতা রাকেশ সিং-ই (Rakesh Singh) তাঁকে ফাঁসিয়েছেন। অন্যদিকে, রাকেশের দাবি তিনি চক্রান্তের (Conspirensy) শিকার। রহস্যের শিকড়ে যেতে গোয়েন্দারা কার্যত আদা-জল খেয়ে তদন্তে নেমেছেন। মাদক-কাণ্ডের একাধিক যোগসূত্রের খোঁজ পেয়েছে কলকাতা পুলিশ (Kolkata Police)।

গত শুক্রবার রাকেশ সিংয়ের (Rakesh Singh) বাড়ির পাশে একটি নির্মীয়মান বিল্ডিংয়ে নতুন তল্লাশি চালিয়েছে কলকাতা পুলিশ। এবার কলকাতা ও শহরে বাইরেও বিভিন্ন জায়গায় সিসিটিভি ফুটেজ (CCTV Footage) খতিয়ে দেখছেন গোয়েন্দারা।

লালবাজার (Lalbazar) সূত্রে খবর, মাদক-কাণ্ডে দু’ডজন ব্যক্তির জেরার তালিকা তৈরি করেছে গোয়েন্দারা। তার মধ্যে ১২ জনকে ইতিমধ্যেই এক দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তাঁদের শারীরিক পরীক্ষাও করেছে। তাঁদের থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ৩ রাজ্যে জোর তল্লাশি চালাচ্ছে কলকাতা পুলিশের পৃথক পৃথক টিম। সেখান থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্যও পুলিশের হাতে এসেছে বলে জানা যাচ্ছে। যা এই মামলায় গুরুত্বপূর্ণ নথি হয়ে উঠতে পারে বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা।

কলকাতায় এর আগে এত পরিমাণ কোকেন উদ্ধার হয়নি কখনও। তাই এই ঘটনাকে পুলিশ বাড়তি গুরুত্ব দিচ্ছে। ১০ লক্ষ টাকারও বেশি মূল্যের কোকেন এক সঙ্গে কলকাতা থেকে এর আগে কবে উদ্ধার হয়েছে, তা মনে করতে পারছেন না গোয়েন্দা বিভাগ। কলকাতা পুলিশের এক অফিসার বলেন, “২০ গ্রাম কোকেন উদ্ধারের ঘটনা ঘটেছিল বেশ কয়েক বছর আগে। কিন্তু একজন ৯০ গ্রাম কোকেন গাড়ি করে যাচ্ছে, তেমন ঘটনা মনে পড়ছে না।”

এদিকে বিজেপি নেত্রী পামেলারবসঙ্গে আর কাদের মাদক-কাণ্ডে যোগাযোগ রয়েছে সেই সূত্র খুজতে চাইছে পুলিশ। বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা (Anupam Hazra) এবং শঙ্কুদেব পণ্ডার (Sankudeb Panda) কাছেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নোটিশ পাঠিয়েছে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ।

আরও পড়ুন:করোনার টিকা নিতে অ্যাপে নাম নথিভুক্ত করতে হবে!

Advt