শুক্রবারের চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশের আগে কাউন্সিলরদের মতামতকে গুরুত্ব দিচ্ছে তৃণমূল

চলতি মাসেই শুরু হয়ে যাচ্ছে বঙ্গ ভোট । ২৭ মার্চ প্রথম দফার নির্বাচন। নির্বাচনের তিন সপ্তাহ আগেও তৃণমূলের প্রার্থীতালিকা নিয়ে এখনও পর্যন্ত অধিকাংশ বিধায়কই জানেন না তিনি এবারের ভোটে আদৌ টিকিট পাবেন কি না । প্রতিটি এলাকার বিধায়করা কে কেমন কাজ করেছেন তা সম্পর্ক যথেষ্টই অবগত থাকেন সংশ্লিষ্ট এলাকার কাউন্সিলর-ব্লক সভাপতিরা । মূলত সেই কারণেই প্রার্থীতালিকা চূড়ান্ত করার আগে তাঁদের চোখে বিধায়কদের মার্কশিট দেখে নিতে তৎপর তৃণমূল নেতৃত্ব ।


প্রার্থী তালিকা ঘোষণার আগে আজ বৃহস্পতিবার তৃণমূল ভবনে কলকাতার সমস্ত কাউন্সিলর, কো-অর্ডিনেটর, বিধায়ক এবং সাংসদদের নিয়ে বৈঠকে বসেছিল ঘাসফুল নেতৃত্ব । দুপুর ১২ টা থেকে শুরু হয় বৈঠক । ছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম, পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সুব্রত বক্সি, অরূপ বিশ্বাস, সাধন পাণ্ডে, নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়, পরেশ পাল, অতীন ঘোষ, রত্না চট্টোপাধ্যায় সহ তৃণমূলের অন্যান্য শীর্ষ নেতৃত্ব ।
মূলত নির্বাচনের রণকৌশল ঠিক করতেই আজকের বৈঠক বলে তৃণমূল সূত্রে খবর ।
সাধন পান্ডে বলেন, প্রত্যেককে চোখ কান খোলা রেখে নির্বাচনী ময়দানে কাজ করতে বলা হয়েছে ।
ভোটের আগে আর বেশি দিন বাকি নেই । বাকি এই ক’টা দিন কোন পথে লড়াই হবে হবে সেই বিষয়েও আলোচনা হয় আজকের বৈঠকে। অতীন ঘোষ বলেছেন, কাউন্সিলরদের পুর নির্বাচনের মতো মনপ্রাণ দিয়ে প্রার্থীর হয়ে এলাকায় নির্বাচনী কাজ করতে বলা হয়েছে ।
আগামীকালই বিধানসভা ভোটের প্রার্থী ঘোষণা করতে চলেছে তৃণমূল । তার আগে আজকের এই বৈঠক যথেষ্টই তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজ্য-রাজনীতির পর্যবেক্ষকরা ।
বিধায়কদের কার কেমন এলাকাভিত্তিক পারফরম্যান্স সেই বিষয়টির উপরেও জোর দিতে চাইছে নেতৃত্ব । আর সেই কারণেই কাউন্সিলর-কোঅর্ডিনেটর-সাংসদদের সঙ্গে বিধায়কদের একই ঘরে বসিয়ে আলোচনা করলেন অভিষেক-পার্থ-ফিরহাদরা । বিধায়করা নিজেদের এলাকায় কে কেমন কাজ করেছেন তার উপর ভিত্তি করে নম্বর দেন কাউন্সিলরা । কাউন্সিলরদের দেওয়া নম্বররের উপর ভিত্তি করেই তৈরি হবে বিধায়কদের মার্কশিট । আসলে বঙ্গে গেরুয়া হাওয়া আটকাতে উঠেপড়ে লেগেছে ঘাসফুল শিবির ।

Advt